বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Bardhaman: আট বছর ধরে বাড়েনি বেতন, বাড়ানোর দাবিতে বিক্ষোভ সিমেন্ট কারখানার শ্রমিকদের
পানগড়ে সিমেন্ট কারখানায় বিক্ষোভরত শ্রমিকরা।
পানগড়ে সিমেন্ট কারখানায় বিক্ষোভরত শ্রমিকরা।

Bardhaman: আট বছর ধরে বাড়েনি বেতন, বাড়ানোর দাবিতে বিক্ষোভ সিমেন্ট কারখানার শ্রমিকদের

  • শ্রমিকদের অভিযোগ, তারা মাসে ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা বেতন পাচ্ছেন। বর্তমানে বাজারে জিনিসপত্রের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে এই টাকাতে তাদের পক্ষে সংসার চালানো সম্ভব হচ্ছে না। অভিযোগ, এর আগেও তারা বিক্ষোভ করেছিলেন।

পেট্রোল-ডিজেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির ফলে সমস্ত জিনিসের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু, এই দুর্মূল্যের বাজারে গত আট বছর ধরে বাড়েনি পানগড়ের শিল্প তালুকের একটি বেসরকারি সিমেন্ট কারখানার শ্রমিকদের বেতন। ফলে তারা সংসার চালাতে গিয়ে সমস্যার মুখে পড়ছেন। এই অবস্থায় বেতন ও ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করলেন ওই কারখানার শ্রমিকরা। আজ সকাল থেকে তারা লাগাতার বিক্ষোভ করছেন।

শ্রমিকদের অভিযোগ, তারা মাসে ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা বেতন পাচ্ছেন। বর্তমানে বাজারে জিনিসপত্রের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে এই টাকাতে তাদের পক্ষে সংসার চালানো সম্ভব হচ্ছে না। অভিযোগ, এর আগেও তারা বিক্ষোভ করেছিলেন। সেই সময় বিধায়কের মধ্যস্থতায় মালিকপক্ষ বেতন বাড়ানো ও অন্যান্য ভাতা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু তার আট মাস পেরিয়ে যাওয়ার পরেও সেই প্রতিশ্রুতি রাখেনি মালিকপক্ষ। তাদের দাবি, অবিলম্বে বেতন বৃদ্ধি সহ অন্যান্য ভাতা দিতে হবে। সেই দাবিতে এদিন কারখানার গেটের সামনে তারা বিক্ষোভ করেন। এই খবর পেয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে কারখানায় পৌঁছয় বুদবুদ থানার পুলিশ। পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের বিক্ষোভ উঠিয়ে নেইয়ার অনুরোধ করা হয়। কিন্তু শ্রমিকরা স্পষ্ট জানিয়ে দেন লিখিত প্রতিশ্রুতি ছাড়া তারা কোনওভাবেই বিক্ষোভ থেকে সরবেন না।

শ্রমিকদের অভিযোগ, এর আগেও রাজনৈতিক নেতা এবং প্রশাসনের উদ্যোগে বারবার বৈঠক হয়েছে মালিকপক্ষের সঙ্গে। তারা বারবার বেতন বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কিন্তু তার পরেও সেই প্রতিশ্রুতি রাখতে পারেননি। তাই প্রতিশ্রুতি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তারা বিক্ষোভ ওঠাবেন না। যদিও এ বিষয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। পানাগড়ে বর্ধমান সদরের বিজেপি নেতা রমণ শর্মা এ নিয়ে তৃণমূলকে কটাক্ষ করেছেন। তিনি বলেন, ‘রাজ্যজুড়ে কাটমানি সরকার চলছে। তাই শ্রমিকরা যদি তৃণমূল নেতাদের কাটমানির টাকা দেয় তাহলে তাদের বেতন বৃদ্ধি হবে না। তাদের চাকরি থাকবে না হলে। আন্দোলন করতে গেলে তাদের চাকরি থাকবে না। রাজ্যের সমস্ত কারখানা তৃণমূলের নির্দেশেই চলে।’

বন্ধ করুন