বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কারখানার পাঁচিলে রক্তের দাগ, শ্রীরামপুরে উদ্ধার যুবকের মুণ্ডহীন দেহ
মুণ্ডহীন মৃতদেহ উদ্ধার।
মুণ্ডহীন মৃতদেহ উদ্ধার।

কারখানার পাঁচিলে রক্তের দাগ, শ্রীরামপুরে উদ্ধার যুবকের মুণ্ডহীন দেহ

  • আজ দিল্লি রোডের ধারে একটি পানশালা লাগোয়া পাঁচিলের গায়ে রক্তের দাগ লেগে ছিল। সেটা দেখে কাছাকাছি যেতেই মুণ্ডহীন দেহ দেখতে পাওয়া যায়। তখনই পুলিশে খবর দেওয়া হয়। এই পাঁচিলটি সেইল কারখানার।

এবার শ্রীরামপুরে মুণ্ডহীন মৃতদেহ উদ্ধার হল। আজ, সোমবার এই মুণ্ডহীন দেহ দেখে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। শ্রীরামপুরের রাজ্যধরপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় দিল্লি রোডের ধারে স্থানীয়রা মুণ্ডহীন মৃতদেহ দেখতে পান। তাঁরাই পুলিশে খবর দেন। কী করে এখানে মুণ্ডহীন দেহ এলো?‌ তা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

ঠিক কী ঘটেছে শ্রীরামপুরে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, আজ দিল্লি রোডের ধারে একটি পানশালা লাগোয়া পাঁচিলের গায়ে রক্তের দাগ লেগে ছিল। সেটা দেখে কাছাকাছি যেতেই মুণ্ডহীন দেহ দেখতে পাওয়া যায়। তখনই পুলিশে খবর দেওয়া হয়। এই পাঁচিলটি সেইল কারখানার। আর তার পাশের নালা থেকে মুণ্ডহীন মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, আজ দিল্লি রোডের ধারে পানশানার কাছে মুণ্ডহীন দেহ উদ্ধার হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে এটি যুবকের দেহ বলেই মনে হয়েছে। তবু দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। পানশালায় মদ্যপান করতে এসে বচসা এবং তার জেরে খুন হয়ে থাকতে পারে। যুবকের পরনে জিনসের প্যান্ট, হাফ শার্ট। মৃত যুবকের বয়স ২৫ বছরের মধ্যে।

এই ঘটনার পর চন্দননগর পুলিশের এসিপি–১ শুভতোষ সরকারের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। মৃতদেহের পাশে প্লাস্টিক জড়ো করা ছিল। তা পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়েছে। বাইরে থেকে খুন করে এখানে ফেলা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। মৃতের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য দেহ শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বন্ধ করুন