বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > গরু পাচরকাণ্ডে ধৃত এনামুলের ৭ দিনের ইডি হেফাজত, তদন্তে ঢিলেমির অভিযোগ রাহুলের
এনামুল হক। ফাইল ছবি।

গরু পাচরকাণ্ডে ধৃত এনামুলের ৭ দিনের ইডি হেফাজত, তদন্তে ঢিলেমির অভিযোগ রাহুলের

  • পাল্টা আক্রমণ করেছেন তৃণমূল নেতা তথা কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

গরু পাচারকাণ্ডের কিংপিং এনামুল হককে সিবিআইয়ের পর এবার গ্রেফতার করল ইডি। শনিবার তাকে দিল্লির ইডি আদালতে তোলা হলে তার সাতদিনের ইডি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। এদিকে, তাকে গ্রেফতারের পরেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন খোদ বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। এ নিয়ে তৃণমূলও পাল্টা বিজেপিকে আক্রমণ করতে ছাড়েনি।

এতদিন তৃণমূল সহ অন্যান্য বিরোধী দলকেই সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনতে শোনা গিয়েছে। নজিরবিহীনভাবে বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা সিবিআই তদন্তে ঢিলেমির অভিযোগ তুলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের অভিযোগ এটাই যে সিবিআই ইনভেস্টিগেশনে ঢিলেমি করছে। ঠিকমতো কাজ করছে না। তারা যদি ঠিকমতো কাজ করতো তাহলে এতদিন তৃণমূলের ৬০ শতাংশ নেতা জেলে থাকত। রাহুল সিনহার এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা আক্রমণ করেছেন তৃণমূল নেতা তথা কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন, ‘রাহুল সিনহা যদি ভেবে থাকে কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকা মানে বিরোধীদের সিবিআই দিয়ে গ্রেফতার করাবো তাহলে তিনি তা করে দেখাক। যত গ্রেফতার হবে তত রাজনৈতিকভাবে মানুষ আমাদের সমর্থন করবে।’

প্রসঙ্গত, এর আগে গরু পাচারকাণ্ডে এনামুলকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। প্রায় দেড় বছর ধরে জেলে থাকার পর গত জানুয়ারিতে তিনি জামিন পান। কিন্তু, বেশকিছু প্রভাবশালীর নাম জানতে পারার পর আবার এনামুলকে গ্রেফতার করেছে এনফর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। তদন্তকারীরা মনে করছেন, প্রচুর পরিমাণে টাকা কলকাতার প্রভাবশালীদের কাছে পাঠানো হতো। তারা কারা এবং আরও কোথায় কোথায় টাকা পাঠানো হত? তার উত্তর জানতে এনামুলকে গ্রেফতার করেছে ইডি।

বন্ধ করুন