বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > BJP's Nabanna March: নবান্ন অভিযানের অনুমতি দিল না পুলিশ, পরোয়া নেই বললেন সুকান্ত
নবান্ন অভিযানের অনুমতি দিল না পুলিশ, পরোয়া নেই, বললেন সুকান্ত। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে সমীর জানা/হিন্দুস্তান টাইমস)

BJP's Nabanna March: নবান্ন অভিযানের অনুমতি দিল না পুলিশ, পরোয়া নেই বললেন সুকান্ত

  • পুলিশ সুত্র খবর, হাওড়া পুলিশ কমিশনারেটের তরফ থেকে চিঠি দিয়ে অনুমতি বাতিলের কথা জানানো হয়েছে। পুলিশের তরফে যুক্তি হিসাবে বলা হয়েছে, এমনিতেই নবান্নতে সংলগ্ন এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি থাকে। চারজনের বেশি জমায়েত করতে দেওয়া হয় না।

বিজেপির নবান্ন অভিযানের অনুমতি দিল না পুলিশ। হাওড়া কমিশনারেট থেকে এই অনুমতি চাওয়া হলে, তা বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। ফলে বিজেপির এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। তবে ঘোষিত কর্মসূচি যে হচ্ছেই তা জানিয়ে দিয়েছেন দলের রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার।

পুলিশ সুত্র খবর, হাওড়া পুলিশ কমিশনারেটের তরফ থেকে চিঠি দিয়ে অনুমতি বাতিলের কথা জানানো হয়েছে। পুলিশের তরফে যুক্তি হিসাবে বলা হয়েছে, এমনিতেই নবান্নতে সংলগ্ন এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি থাকে। চারজনের বেশি জমায়েত করতে দেওয়া হয় না।

পুলিশ যুক্তি হিসাবে মঙ্গলাহাটের কথাও বলেছে। কমিশনারেটের বক্তব্য, মঙ্গলবার ওই এলাকায় হাট থাকায় প্রচুর মানুষের সমাগম হয়। তা ছাড়া প্রচুর গাড়ি চলাচল করায় জাতীয় সড়কের উপর চাপ তৈরি হবে। পাশাপাশি নবান্ন অভিযানকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই চারটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তাই নবান্ন অভিযান বাতিল করা করা কথা বলেছে পুলিশ।

তবে পুলিশের এই নির্দেশের পরও কর্মসূচি বাতিল করছে না বিজেপি। দলের রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘‘আমরা আশা করিনি যে অনুমতি পাব। যে তৃণমূল ব্লকে মিছিল করতে বাধা দেয় তারা এই কর্মসূচি আটকে দেবে এটাই তো স্বাভাবিক।’’ তিনি বলেন, ‘‘ পুলিশ বাধা দিলেও আমরা অভিযানের জন্য তৈরি।’’

নবান্ন অভিযানে যোগ দিতে ইতিমধ্যেই জেলা থেকে কর্মীরা কলকাতামুখী হয়েছেন। বিভিন্ন জায়গায় কর্মীদের জন্য নির্ধারিত ট্রেনে উঠতে বাধা দিচ্ছে পুলিশ বলে অভিযোগ বিজেপির। অভিযোগ, তুফানগঞ্জ, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারসহ বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির ভাড়া করা বিশেষ ট্রেনে দলীয় কর্মীদের উঠতে বাধা দিয়েছে পুলিশ।

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী এ নিয়ে একটি টুইটে লেখেন, ‘বিজেপি কর্মীদের পিসির চাকর পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ তুফনগঞ্জ ও আলিপুরদুয়ারে বাধা দিয়েছে। দেখুন কী ভাবে ব্যারিকেড তৈরি করে বিজেপি।’

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে কর্মীদের চাঙ্গা করতে এই কর্মসূচি বিজেপির কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই একে সফল করতে মরিয়া সুকান্ত-শুভেন্দুরা। অনুমতি না মেলা সত্ত্বেও যদি কর্মসূচি জারি রাখা যায় তবে শাপে বর হবে। পুলিশের বাধায় কাছে দলের ‘শক্তি’ মেপে নেওয়া যাবে। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে যা খুবই জরুরি। ঠিক যেমনটা করতেন বামেরা বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন