প্রজাতন্ত্র দিবসের সকালে রেডরোডে মুখোমুখি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
প্রজাতন্ত্র দিবসের সকালে রেডরোডে মুখোমুখি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ফের সম্পর্কের শৈত্য কাটানোর চেষ্টা, মুখ্যমন্ত্রীকে রাজভবনের আমন্ত্রণ রাজ্যপালের

  • প্রথা মেনে প্রতিবার প্রজাতন্ত্র দিবসের বিকেলে রাজভবনে বসে চা চক্র। সেখানে হাজির থাকেন প্রশাসনিক কর্তা, বরিষ্ঠ রাজনৈতিক নেতা, শিল্পী ও শিল্পপতিরা।

কালীপুজোয় আমন্ত্রণ গ্রহণ করে সম্পর্কের শৈত্য কাটানোর চেষ্টা করেছিলেন আপ্রাণ। কিন্তু বরফ গলেনি। বরং পশ্চিমবঙ্গে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত আরও চরমে পৌঁছেছে। প্রজাতন্ত্র দিবসে ফের একবার সেই শুভ উদ্যোগ গ্রহণ করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজভবনে আমন্ত্রণ জানালেন মুখ্যমন্ত্রীকে। রবিবার প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডে রেডরোডে দেখা হয় রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রী তখনই বিকেলে রাজভবনের চা চক্রে মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানান তিনি।

প্রথা মেনে প্রতিবার প্রজাতন্ত্র দিবসের বিকেলে রাজভবনে বসে চা চক্র। সেখানে হাজির থাকেন প্রশাসনিক কর্তা, বরিষ্ঠ রাজনৈতিক নেতা, শিল্পী ও শিল্পপতিরা। এবার সেই চায়ের আসরেই মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানালেন রাজ্যপাল। এর আগেও বেশ কয়েকবার মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন রাজ্যপাল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেখানে গিয়ে পৌঁছননি মুখ্যমন্ত্রী। যার ফলে নিজের ক্ষোভও গোপন করেননি মুখ্যমন্ত্রী।


রবিবার সকালে রেডরোডে সংক্ষিপ্ত মোলাকাতে যদিও সেই শৈত্য ধরা পড়েনি। বরং খোস মেজাজেই কথা বলতে দেখা গিয়েছে ২ জনকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে রাজ্যপালের সংঘাত রাজ্যবাসীর জন্য মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়। স্বাস্থ্যকর নয় গণতন্ত্রের জন্যও। এদিন রেডরোডে প্যারেডের পর ট্যুইটে মুখ্যমন্ত্রী সংবিধানের মূল ভাবনাগুলিকে সজীব রাখার পক্ষে সওয়াল করেন তিনি।

বন্ধ করুন