ডান দিকে বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত
ডান দিকে বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত

আপনার করোনা হবে, এজলাসে বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তকে হুমকি আইনজীবীর

বিচারপতি নিজের রায় পড়া শুরু করতেই ক্ষেপে ওঠেন বিজয়বাবু। রায় বিপক্ষে যাওয়ায় টেবিল চাপড়াতে শুরু করেন তিনি। মাইক্রোফোন আছাড় মারেন।

কলকাতা হাইকোর্টের ইতিহাসে ঘটল চাঞ্চল্যকর ঘটনা। রায় পছন্দ না হওয়ায় বিচারপতিকে অভিশাপ দিলেন এক আইনজীবী। তাও আবার যেমন তেমন অভিশাপ নয়, বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের করোনা হবে বলে অভিশাপ দিয়েছেন আইনজীবী বিজয় অধিকারী। তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি দত্ত।

গত ১৫ শে মার্চ থেকে কলকাতা হাইকোর্টে শুধুমাত্র জরুরি মামলার শুনানি চলছে। ২৫ মার্চ থেকে ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ে জরুরি মামলার শুনানি করছেন বিচারপতিরা। এরই মধ্যে গত ২৩ মার্চ ওই আইনজীবীর বিরুদ্ধে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে আদালত অবমাননার মামলা শুরু করেছেন বিচারপতি।

ঘটনার সূত্রপাত একটি বাস নিলামের ওপর স্থগিতাদেশের আবেদন করে দায়ের মামলা নিয়ে। বিজয় অধিকারী নামে ওই আইনজীবীর মক্কেলের বাস কিস্তি না চোকানোয় গত জানুয়ারিতে বাজেয়াপ্ত করে ব্যাঙ্ক। সেটি যাতে ব্যাঙ্ক নিলামে তুলতে না পারে সেজন্য আদালতের দ্বারস্থ হন মালিক। এই মামলাকে ‘জরুরি’ বলে মানতে অস্বীকার করেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত।

বিচারপতি নিজের রায় পড়া শুরু করতেই ক্ষেপে ওঠেন বিজয়বাবু। টেবিল চাপড়াতে শুরু করেন তিনি। মাইক্রোফোন আছাড় মারেন। তাঁকে বার বার শান্ত হওয়ার নির্দেশ দেন বিচারপতি। বলেন, ‘তাঁর আচরণ আইনজীবীর মহান পেশার সঙ্গে মানানসই নয়।’ কিন্তু কোনও কথাতেই কান দেননি আইনজীবী।

উলটে তিনি বিচারপতিকে বলেন, ‘আপনার কেরিয়ার শেষ করে দেব। আপনার করোনাভাইরাস হবে।’ এর পরই তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করেন বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত। আদালত চালু হলে ডিভিশন বেঞ্চে বিচার হবে সেই আইনজীবীর।



বন্ধ করুন