সিএএ ইস্যুতে ফের বিজেপির অস্বস্তি বাড়ালেন চন্দ্রকুমার বসু (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
সিএএ ইস্যুতে ফের বিজেপির অস্বস্তি বাড়ালেন চন্দ্রকুমার বসু (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

'সংখ্যা আছে বলে টেরর পলিটিক্স করতে পারি না', CAA ইস্যুতে বললেন চন্দ্র বসু

চন্দ্রকুমার বসু বলেন, 'গণতান্ত্রিক দেশে নাগরিকদের উপর কোনও আইন চাপানো উচিত নয়।'

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) ইস্যুতে ফের বিজেপির অস্বস্তি বাড়ালেন চন্দ্রকুমার বসু। বললেন, 'গণতান্ত্রিক দেশে নাগরিকদের উপর কোনও আইন চাপানো উচিত নয়।'

আরও পড়ুন : প্রতিবাদের ভাষায় যুবভারতীতে মিশে গেল লাল-হলুদ ও সবুজ-মেরুন

সংবাদসংস্থা এএনআই-কে নেতাজির প্রপৌত্র বলেন, 'আমাদের কাজ হল, মানুষকে বোঝানো যে আমরা ঠিক, ওরা (বিরোধীরা) ভুল। আপনি জবরদস্তি করতে পারেন না। পর্যাপ্ত সংখ্যা রয়েছে বলে টেরর পলিটিক্স করতে পারি না আমরা। মানুষের কাছে গিয়ে সিএএয়ের সুবিধা বোঝাতে হবে আমাদের।'

আরও পড়ুন : এনআরসি হলে কী কী নথি লাগবে? জানাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

বিজেপি নেতার মতে, কোনও বিল আইনে পরিণত হলে তা লাগু করতে বাধ্য রাজ্যগুলি। চন্দ্রকুমারবাবুর কথায়, 'কোনও বিল আইনে পরিণত হলে তা লাগু করতে বাধ্য রাজ্যগুলি। আইনে সেটাই বলা হয়েছে। কিন্তু নাগরিকদের উপর আপনি কোনও আইন চাপিয়ে দিতে পারেন না।'

আরও পড়ুন : কমেছে অবৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ঢোকার সময় গ্রেপ্তারির সংখ্যা

নয়া আইন নিয়ে বিরোধীদের প্রচার কীভাবে আটকানো যায়, সে নিয়েও পরামর্শ দেন নেতাজির প্রপৌত্র। তিনি বলেন, 'আমাদের নির্দিষ্টভাবে বলতে হবে যে, এই আইন শুধুমাত্র নিপীড়িত সংখ্যালঘুদের জন্য। কোনও ধর্মের উল্লেখ করা যাবে না। আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি আলাদা হওয়া প্রয়োজন।'

তবে নয়া আইন নিয়ে এই প্রথম বিজেপিকে অস্বস্তিতে ফেললেন না বিজেপি নেতা। গত মাসে নয়া আইনকে ‘ব্লান্ডার’ (সাংঘাতিক ভুল) বলে মন্তব্য করছিলেন নেতাজি প্রপৌত্র।

আরও পড়ুন : 'CAA যদি ধর্মনিরপেক্ষ হয়, তাহলে মুসলিমরা নেই কেন?' প্রশ্ন চন্দ্র বসুর

বন্ধ করুন