বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে বসে পুরসভা, কলকাতা বৃষ্টির দিনে ভাঙল আরও ২ বিপজ্জনক বাড়ি
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে বসে পুরসভা, কলকাতা বৃষ্টির দিনে ভাঙল আরও ২ বিপজ্জনক বাড়ি

  • কলকাতায় বিপজ্জনক বাড়ি ভাঙায় বিশেষ অনীহা রয়েছে পুরসভার। এব্যাপারে তাঁরা অসহায় বলে দিনকয়েক আগেই জানিয়েছেন শহরের মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। আদালতের কাছে তারা এব্যাপারে নির্দেশ জারির আহ্বান জানিয়েছে।

সারারাতের বর্ষার পর সোমবার কলকাতায় ভেঙে পড়ল ২টি পুরনো বাড়ি। সোমবার সকালে কটন স্ট্রিটে একটি বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়ে। নারকেলডাঙাতেও পুরনো একটি দোতলা বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়েছে। বরাতজোরে ঘটনায় হতাহত হননি কেউ।

সোমবার সকালে কটন স্ট্রিটের একটি চারতলা বাড়ির বারান্দা ভেঙে পড়ে। ওই বাড়িতে ভাড়া থাকে একটি পরিবারের। তাদের বার করে আনেন স্থানীরা। এলাকাবাসীর কথায়, বাড়িটির অবস্থা খুব খারাপ। যে কোনও সময় গোটা বাড়িটাই ভেঙে পড়তে পারে। তাতে স্থানীয় বাসিন্দা ও পথচারীদের প্রাণসংশয় হতে পারে।

একই ভাবে নারকেলডাঙায় একটি দোতলা বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়ে। ওই বাড়িতেও থাকত একটি পরিবার। ঘটনার পর তাদের বার করে আনা হয়।

কলকাতায় বিপজ্জনক বাড়ি ভাঙায় বিশেষ অনীহা রয়েছে পুরসভার। এব্যাপারে তাঁরা অসহায় বলে দিনকয়েক আগেই জানিয়েছেন শহরের মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। আদালতের কাছে তারা এব্যাপারে নির্দেশ জারির আহ্বান জানিয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন হল, পুরসভা থেকে রাজ্য সরকার নিজেদের দখলে থাকলেও কেন পুরনো বাড়ি ভাঙতে আইন আনছে না তৃণমূল সরকার?

রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, কলকাতা শহরে প্রায় ৩,০০০ বিপজ্জনক বাড়ি রয়েছে। কলকাতা শহরে পুরনো বাড়িতে নামমাত্র ভাড়ায় দখল করে থাকেন কয়েক হাজার মানুষ। পুরসভা পদক্ষেপ করলে তারা তৃণমূলের প্রতি ক্ষুব্ধ হতে পারে। রাজনৈতিক সেই ক্ষতির আশঙ্কাতেই শহরবাসীর প্রাণ সংশয় জেনেও পুরনো বাড়িতে হাত দেয় না পুরসভা।

 

বন্ধ করুন