বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্থগিতই থাকছে ঐতিহাসিক জয়ের উৎসব, করোনার দাপটে ভার্চুয়ালি ২১ জুলাই পালন তৃণমূল
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

স্থগিতই থাকছে ঐতিহাসিক জয়ের উৎসব, করোনার দাপটে ভার্চুয়ালি ২১ জুলাই পালন তৃণমূল

এবারে ভার্চুয়াল মাধ্যমেই দলীয় কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখবেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে দলীয় কর্মীদের কাছে বার্তা পৌঁছে দিতে ফেসবুক, ইউটিউবকেই মাধ্যম করেছেন তৃণমূল নেত্রী।

‌করোনা পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। তাই এবার ২১ জুলাইয়ের শহিদ দিবস পালন হবে ভার্চুয়ালি। সোমবার তৃণমূল ভবনে এই কথাই ঘোষণা করলেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিন তিনি জানান, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে। পরিস্থিতির কথা বিচার করে এবার শহিদ দিবস পালন ভার্চুয়ালি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত বছর যখন সারা দেশজুড়ে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছিল, তখন দলের তরফে শহিদ দিবস পালন ভার্চুয়াল মাধ্যমেই করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনা আবহে স্বাস্থ্য বিধি মেনে বুথে বুথে শহিদ দিবস পালিত হয়েছিল। তৃণমূল নেত্রী কালীঘাটের বাড়ি থেকে বক্তব্য রেখেছিলেন। সেই সময় তৃণমূল নেত্রী জানিয়েছিলেন, আগামী বছর আরও বড় করে একুশে জুলাই পালিত হবে। কিন্তু চলতি বছরেও করোনা পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক হয়নি। ফলে এবারেও ধর্মতলায় শহিদ দিবস পালিত হবে না। এবারে ভার্চুয়াল মাধ্যমেই দলীয় কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখবেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে দলীয় কর্মীদের কাছে বার্তা পৌঁছে দিতে ফেসবুক, ইউটিউবকেই মাধ্যম করেছেন তৃণমূল নেত্রী। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে যিনি বিধানসভা ভোটের জয়ের উদযাপনও ২১ জুলাই ব্রিগেডে করবেন বলে জানিয়েছেন।

‌করোনা পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। তাই এবার ২১ জুলাইয়ের শহিদ দিবস পালন হবে ভার্চুয়ালি। সোমবার তৃণমূল ভবনে এই কথাই ঘোষণা করলেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিন তিনি জানান, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে। পরিস্থিতির কথা বিচার করে এবার শহিদ দিবস পালন ভার্চুয়ালি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত বছর যখন সারা দেশজুড়ে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছিল, তখন দলের তরফে শহিদ দিবস পালন ভার্চুয়াল মাধ্যমেই করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনা আবহে স্বাস্থ্য বিধি মেনে বুথে বুথে শহিদ দিবস পালিত হয়েছিল। তৃণমূল নেত্রী কালীঘাটের বাড়ি থেকে বক্তব্য রেখেছিলেন। সেই সময় তৃণমূল নেত্রী জানিয়েছিলেন, আগামী বছর আরও বড় করে একুশে জুলাই পালিত হবে। কিন্তু চলতি বছরেও করোনা পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক হয়নি। ফলে এবারেও ধর্মতলায় শহিদ দিবস পালিত হবে না। এবারে ভার্চুয়াল মাধ্যমেই দলীয় কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখবেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে দলীয় কর্মীদের কাছে বার্তা পৌঁছে দিতে ফেসবুক, ইউটিউবকেই মাধ্যম করেছেন তৃণমূল নেত্রী। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে যিনি বিধানসভা ভোটের জয়ের উদযাপনও ২১ জুলাই ব্রিগেডে করবেন বলে জানিয়েছেন।|#+|

আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত রাজ্যে কড়া বিধিনিষেধ জারি রয়েছে। এরপরেও রাজ্যে বিধিনিষেধ জারি হবে কিনা, সেবিষয়ে কোনও ঠিক নেই। রাজ্যে এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও ফের তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে বিশাল কোনও জনসমাবেশ করতে চাইছে না তৃণমূল নেতৃত্ব। এখনও পর্যন্ত ঠিক হয়েছে, প্রথমে ব্লকে ব্লকে শহিদ তর্পন হবে, তারপর ভাষণ দেবেন তৃণমূল নেত্রী। তবে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত কোনও রূপরেখা তৈরি হয়নি। এর আগে ২ মে তৃণমূল তৃতীয়বারের জন্য রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর বিজয় অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ বাতিল করে দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন