বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অটোচালকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার শহরে, পরিবারের অভিযোগ খুন, তদন্তে পুলিশ
মৃত দেহের প্রতীকী ছবি

অটোচালকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার শহরে, পরিবারের অভিযোগ খুন, তদন্তে পুলিশ

  • স্থানীয়রা দেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।

এবার খাস কলকাতায় অটোচালকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হল। এই ঘটনায় প্রবল চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। কারণ এখন রাজ্যজুড়ে করোনাভাইরাস দাপট দেখাচ্ছে। সেখানে রাস্তায় অসুস্থ হয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় মৃত্যু হল কিনা তা নিয়ে শোরগোল পড়ে যায়। রবিবার সকালে আনন্দপুর এলাকা থেকে এই অটোচালকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতের নাম বিশ্বজিৎ জানা। তিনি পেশায় অটোচালক ছিলেন। গড়িয়াহাট মোড় থেকে রুবির রুটে অটো চালাতেন তিনি। শনিবার তিনি বাড়ি ফেরেননি। আজ, রবিবার তাঁর দেহ একটি বেসরকারি হাসপাতালের পিছন দিক থেকে উদ্ধার হয়। স্থানীয়রা দেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। কিভাবে এই অটোচালকের মৃত্যু হল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বিশ্বজিৎ জানার মৃত্যু নিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। পুলিশ এসে খোঁজখবর করে জানতে পারেন তিনি একজন অটোচালক। তাঁর বাড়ি নোনাডাঙ্গা আনন্দপল্লিতে। শনিবার রাতে তিনি বাড়ি ফেরেননি। আজ, রবিবার সকালে তাঁর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। পরিবারের সদস্যদের দাবি, খুন করা হয়েছে ওই অটোচালককে।

পরিবার সূত্রে খবর, বিশ্বজিতের পরিবারে রয়েছেন তার স্ত্রী, শিশুসন্তান এবং বাবা–মা। শনিবার রাতে সে বাড়ি ফেরেনি। তখন খোঁজখবর করা হয়। কিন্তু কোনও খোঁজ মেলেনি। তবে মাঝেমধ্যে বিশ্বজিৎ বাড়িতে আসত না। তাই রবিবার খোঁজ নেওয়া হবে বলে ঠিক হয়। সেখানে এই খবর এলো সকালবেলায়। তাঁকে খুন করা হয়েছে। রক্তাক্ত অবস্থায় অটোচালককে যেখানে পাওয়া গিয়েছে সেখানে মিলেছে একটি থান ইট, রড। তাই দিয়েই খুন করা হয়েছে।

বন্ধ করুন