বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Topsia: মাসির বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ২১ তলা থেকে পড়ে মৃত্যু কিশোরের, তদন্তে পুলিশ
মৃতদেহের প্রতীকী ছবি।

Topsia: মাসির বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ২১ তলা থেকে পড়ে মৃত্যু কিশোরের, তদন্তে পুলিশ

  • পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আনন্দ বেলুড়ের অভয় গুহ রোডের বাসিন্দা। সে ডনবস্কো স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র। তার বাবা পেশায় লোহার ব্যবসায়ী। শুক্রবার পরিবারের সঙ্গে তপসিয়ায় মাসির বাড়ি বেড়াতে গিয়েছিল আনন্দ।

মাসির বাড়ি বেড়াতে গিয়ে মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল। ২১ তলার বারান্দা থেকে পড়ে গিয়ে মৃত্যু হল এক দশম শ্রেণীর এক পড়ুয়ারা। মৃত কিশোরের নাম আনন্দ উপাধ্যায়। ২১ তলা থেকে কিশোরের পড়ে যাওয়া নিয়ে রহস্য ঘনীভূত হয়েছে। কীভাবে ওই কিশোর পড়ে গেল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। গতকাল ঘটনাটি ঘটেছে তপসিয়ায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আনন্দ বেলুড়ের অভয় গুহ রোডের বাসিন্দা। সে ডনবস্কো স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র। তার বাবা পেশায় লোহার ব্যবসায়ী। শুক্রবার পরিবারের সঙ্গে তপসিয়ায় মাসির বাড়ি বেড়াতে গিয়েছিল আনন্দ। সেখানে দুপুরের খাবারের আয়োজন চলছিল। তবে সেই সময় থেকে আনন্দের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। প্রথমে অবশ্য পরিবারের সদস্যরা বিষয়টিতে খুব বেশি গুরুত্ব দেননি। কিন্তু, সকলে মিলে দুপুরের খাবার খাওয়ার সময়ও আনন্দকে খুঁজে না পাওয়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন পরিবারের সদস্যরা। অনেক খোঁজা খুঁজির পর অবশেষে বিকেলে ২১ তলার আবাসনের নীচে রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় আনন্দের। তড়িঘড়ি তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও শেষ রক্ষা করা সম্ভব হয়নি। চিকিৎসকরা জানান, তার আগেই মৃত্যু হয় আনন্দের। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে পরিবারে।

পারিবারিক সূত্রে খবর, প্রায় দেড় বছর আগে ওই কিশোরের ব্রেন টিউমার হয়েছিল। বেঙ্গালুরুতে তার অস্ত্রোপচার হয়েছিল। কোনওভাবে ২১ তলার রেলিং টপকে আনন্দ পড়ে গিয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। তবে এই ঘটনায় রহস্য দানা বেঁধেছে। সেক্ষেত্রে ওই কিশোরকে ধাক্কা মেরে নীচে ফেলে দেওয়া হয়েছে নাকি আত্মহত্যা করেছে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে কী কারণে বা কীভাবে ওই কিশোর পড়ে গেল সেই বিষয়টি এখনও স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে। ঘটনায় আনন্দের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

বন্ধ করুন