বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Murder: গলায় ভাঙা কাচের বোতল ঢুকিয়ে রিক্সাচালককে খুন, সরশুনায় গ্রেফতার ব্যক্তি

Murder: গলায় ভাঙা কাচের বোতল ঢুকিয়ে রিক্সাচালককে খুন, সরশুনায় গ্রেফতার ব্যক্তি

রিক্সাচালককে খুন করলেন এক ব্যক্তি।

এই ঘটনার পরই রক্তাক্ত রবিদাসকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অভিযুক্ত সুশান্ত সমাদ্দারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এমনকী কেন এমন ঘটনা তিনি ঘটালেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, সুশান্তে সঙ্গে এই রবিদাসের পুরনো বিবাদ ছিল। 

রিক্সাচালককে খুন করলেন এক ব্যক্তি। সরাসরি গলায় কাচের বোতল ভেঙে ঢুকিয়ে দিয়ে খুন করা হয় রিক্সাচালককে বলে অভিযোগ। এই ব্যক্তির মা ওই রিক্সাচালকের সঙ্গে যেতে চেয়েছিলেন। আর ছেলে সেটা মানতে নারাজ। মা যখন ওই রিক্সায় গিয়ে উঠলেন তখন ছেলে তাঁকে নামাতে ব্যস্ত হয়ে ওঠেন। এই নিয়ে দু’‌পক্ষের মধ্যে বচসা বাধে। তখন রিক্সাচালকের গলায় কাচের বোতল ভেঙে ঢুকিয়ে দেন ওই ব্যক্তি। আর ঘটনাস্থল সরশুনাতেই মৃত্যু হয় রিক্সাচালকের।

ঠিক কী ঘটেছে সরশুনায়?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, এই খুনের ঘটনাটি ঘটেছে সুরশুনার ব্যানার্জিপাড়া এলাকায়। মৃত রিক্সাচালকের নাম রবিদাস। আর মূল অভিযুক্ত সুশান্ত সমাদ্দারকে গ্রেফতার করেছে সুরশুনা থানার পুলিশ। সুশান্ত সমাদ্দারের মা একটা জায়গায় দরকারে যাবেন বলে ফোন করে রবিদাসকে ডেকে আনেন। আর রবিদাসের রিক্সায় মা যান আপত্তি ছিল সুশান্তর। তা থেকেই খুনোখুনি।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, নিজের মাকে রবিদাসের রিক্সায় উঠতে বাধা দেন সুশান্ত। তা নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন সুশান্ত এবং রবিদাস। সেখান থেকে হাতাহাতি হতে থাকে। তখনই সুশান্ত একটি ভাঙা কাচের বোতল রাস্তা থেকে তুলে নেয়। আর বচসার সময়ে বিদাসের গলায় বিঁধে দেন সেটি। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন রবিদাস। এই ঘটনায় সুশান্ত সমাদ্দারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তারপর সেখানে কী ঘটল?‌ এই ঘটনার পরই রক্তাক্ত রবিদাসকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অভিযুক্ত সুশান্ত সমাদ্দারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এমনকী কেন এমন ঘটনা তিনি ঘটালেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, সুশান্তে সঙ্গে এই রবিদাসের পুরনো বিবাদ ছিল। আর তা থেকেই এই বচসা এবং খুন। রবিদাসের দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।

বন্ধ করুন