বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কথাবার্তাও ভালোই ছিল, এই ছবি বানাত তা কে জানত!নীল ছবির কথা প্রকাশ্য়ে আসতেই হইচই
 ওয়েবসিরিজের নাম করে পর্নোগ্রাফি বানানোর অভিযোগ। প্রতীকী ছবি

কথাবার্তাও ভালোই ছিল, এই ছবি বানাত তা কে জানত!নীল ছবির কথা প্রকাশ্য়ে আসতেই হইচই

  • অভিযুক্ত ব্যক্তি ইতিমধ্য়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। এনিয়ে পরিবারের তরফেও বিশেষ কিছু জানানো হয়নি।

কথা ছিল ওয়েব সিরিজের অভিনয় করানো হবে। প্রতি ওয়েব সিরিজর শুটিংয়ের জন্য ২০ হাজার টাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়েছিল। এমনটাই অভিযোগ ওই ছবিতে অভিনয় করা শোভাবাজারের এক যুবকের। কিন্তু বাস্তবে ওয়েব সিরিজের নাম করে হয়েছে নিউটাউনে হয়েছে পর্ন ছবির শুটিং। আর সেই নীলছবি কান্ডে মূল অভিযুক্তকে খুঁজছে বেলঘড়িয়া থানার পুলিশ।

 বেলঘড়িয়ার ২ নম্বর এলাকায় একটি বাড়ির নীচের তলায় ভাড়া থাকত ওই ব্যক্তি। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি. তাঁরা জানতেন ওই ব্য়ক্তি শুটিং করেন। কিন্তু এখন এসব অভিযোগ শুনে চক্ষু চড়কগাছ স্থানীয় বাসিন্দাদের। স্থানীয় এক বাসিন্দার দাবি, আমরা তো বাইরে থেকে কিছু বুঝতে পারিনি। ভাবতাম ছবির শুটিং করেন। কিন্তু এই ছবি কে জানত! অনেক লোকই বাড়িতে যাতায়াত করেন। কথাবার্তাও ভালো ছিল। পাড়ার মধ্যেই এমন লোকের বাস কী করে জানব। কয়েক মাস আগেই ভাড়া এসেছিলেন এখানে। এদিকে পাড়ার মধ্যেই নীল ছবির পরিচালক থাকেন একথা জানাজানি হতেই একেবারে ঢি ঢি পড়ে গিয়েছে চারদিকে। 

তবে অভিযুক্ত ব্যক্তি ইতিমধ্য়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। এনিয়ে পরিবারের তরফেও বিশেষ কিছু জানানো হয়নি। তবে তার স্ত্রীর দাবি, সোমবার রাতে কয়েকজন এসে তাঁর স্বামীকে বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে গিয়েছে। তারপর থেকে আর তিনি স্বামীর খোঁজ পাননি। কামারহাটি পুরসভার প্রশাসক গোপাল সাহার সংশয়, শুধু কলকাতা নয়, বারাকপুর শিল্পাঞ্চলেও এই নীল ছবির জাল ছড়িয়ে থাকতে পারে। 

 

বন্ধ করুন