বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর গাড়ির চাকায় পিষ্ট জিএসআইয়ের বিজ্ঞানী
অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর গাড়ির চাকায় পিষ্ট হলেন জিএসআইয়ের বিজ্ঞানী। প্রতীকী ছবি।
অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর গাড়ির চাকায় পিষ্ট হলেন জিএসআইয়ের বিজ্ঞানী। প্রতীকী ছবি।

অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর গাড়ির চাকায় পিষ্ট জিএসআইয়ের বিজ্ঞানী

  • ঘটনায় অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মী মোহনলাল ঘোষের গাফিলতিকেই দায়ী করেছেন আবাসনের বাসিন্দারা।

গাড়ি চালানো শিখেছিলেন অবসরপ্রাপ্ত পুলিশকর্মী। আর তা শিখতে গিয়েই সকাল সকাল মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে গেল নিউ গড়িয়ার আবাসনে। অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হলো জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার এক বিজ্ঞানির। এই ঘটনায় অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মী মোহনলাল ঘোষের গাফিলতিকেই দায়ী করেছেন আবাসনের বাসিন্দারা। বিজ্ঞানীর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করেছে পঞ্চসায়ের থানার পুলিশ।

জানা যাচ্ছে, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মী মোহনলাল ঘোষ এএসআই ছিলেন। গাড়ি চালানোর শখ তাঁর বহুদিনের। সেই কারণে গত কয়েকদিন ধরেই তিনি গাড়ি চালানো শিখছেন। আবাসনের বাসিন্দাদের অভিযোগ, দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কায় বার বার বারণ করা সত্ত্বেও তিনি আবাসনের মধ্যেই গাড়ি চালানো শেখা বন্ধ করেননি। মঙ্গলবার সকালেও গাড়ি চালানো শিখছিলেন পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত ওই অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর। সেই সময় আচমকাই মোহনলালের গাড়িতে সজোরে ধাক্কা মারে বিজ্ঞানী সুনীল গড়াইয়ের বাইক। সেই অবস্থায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিজ্ঞানীকে পিষে দেয় অবসরপ্রাপ্ত পুলিশকর্মীর গাড়ি। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুনীল গড়াইয়ের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, তিনি বিশাখাপত্তনমে জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার ( জি এস আই) দফতরে কর্মরত ছিলেন। গত শনিবার তিনি বাড়ি এসেছেন। তারপরেই বিজ্ঞানীর আকস্মিক মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে পরিবারে।

দুর্ঘটনার জন্য মোহনলাল ঘোষকে দায়ী করেছেন আবাসিক কমিটির সম্পাদক অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর বক্তব্য, 'আবাসনে অনেক বৃদ্ধ-বৃদ্ধা এবং বাচ্চারা রয়েছে। তাই আবাসনের মধ্যে গাড়ি চালানো শিখতে আমরা বারণ করেছিলাম। তার পরেও উনি কথা শোনেননি।' মোহনলাল ঘোষের গাফিলতির জন্য এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।

বন্ধ করুন