বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিচারপতিদের ভয় দেখানো এত সহজ নয়, আদালতে বিশৃঙ্খলা নিয়ে বললেন অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

বিচারপতিদের ভয় দেখানো এত সহজ নয়, আদালতে বিশৃঙ্খলা নিয়ে বললেন অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।

বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘পৃথিবীশুদ্ধু সবাই দেখতে পাচ্ছেন, পশ্চিমবঙ্গে বিচারব্যবস্থাকে সন্ত্রস্ত করার চেষ্টা হচ্ছে। আইনজীবীদের একটা অংশ বিচারপতি ও জেলা আদালতের বিচারকদের সন্ত্রস্ত করে নিজেদের পথে আনতে চাইছেন।

বিচারপতিদের ভয় দেখানোর চেষ্টা হচ্ছে। তবে ভারতের বিচারব্যবস্থা এত ঠুনকো নয়। আদালতে আইনজীবীদের একাংশের তাণ্ডবকে এভাবেই ব্যাখ্যা করলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই মন্তব্য করেন তিনি। তবে এই ঘটনায় কোনও রাজনৈতিক দলের যোগ রয়েছে বলে মানতে নারাজ তিনি।

এদিন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘পৃথিবীশুদ্ধু সবাই দেখতে পাচ্ছেন, পশ্চিমবঙ্গে বিচারব্যবস্থাকে সন্ত্রস্ত করার চেষ্টা হচ্ছে। আইনজীবীদের একটা অংশ বিচারপতি ও জেলা আদালতের বিচারকদের সন্ত্রস্ত করে নিজেদের পথে আনতে চাইছেন। তবে গতকাল প্রাক্তন বিচারপতি অশোক গঙ্গোপাধ্যায় একটা যুক্তিপূর্ণ কথা বলেছেন, আমাদের বিচারব্যবস্থা এত ঠুনকো নয় যে কেউ চাইলেই সন্ত্রস্ত করতে পারবে। এটা সম্ভব নয়। যারা ভাবছেন তারা ভুল ভাবছেন।’

এর পর তিনি বলেন, ‘আমি কোনও দলের কথা বলছি না। কোনও দল করেছে কি না আমি জানি না। আমি শুনেছি শাসকদল বলেছে আমরা এরকম কিছু করিনি। কিন্তু যারা করেছেন তাদের আমরা চিনি, আদের আমরা জানি। এরা আগেও করেছেন। কী উদ্দেশ নিয়ে করেছেন সেটা তদন্তসাপেক্ষ।’

বিচারপতি রাজশেখর মান্থার নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সোমবার তাঁর এজলাস বয়কটের ডাক দেন কিছু আইনজীবী। কেন বারবার বিচারপতি মান্থা শুভেন্দু অধিকারীর পক্ষে ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপক্ষে রায় দিচ্ছেন তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তাঁরা। অন্য আইনজীবীরা বিচারপতি মান্থার এজলাসে ঢুকতে গেলে বাধা দেওয়া হয়। মঙ্গলবার এই ঘটনায় আদালত অবমাননার রুল জারি করেন বিচারপতি মান্থা। গোটা বিষয়টি এদিন প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে উত্থাপিত হয়। আদালতের তরফে জানা গিয়েছে, সোমবারের ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে এই ঘটনায় কারা কারা দোষী তা চিহ্নিত করবেন প্রধান বিচারপতি। এই ঘটনার জেরে এদিন প্রধান বিচারপতির তীব্র ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হয় বার কাউন্সিলের আইনজীবীকে।

 

বন্ধ করুন