বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আবার কলকাতা হাইকোর্টে হাঁসখালির নির্যাতিতার বাবা–মা, আইসি’‌র বিরুদ্ধে নালিশ

আবার কলকাতা হাইকোর্টে হাঁসখালির নির্যাতিতার বাবা–মা, আইসি’‌র বিরুদ্ধে নালিশ

হাঁসখালিতে অভিযুক্তের বাড়িতে CBI.

এবার দ্বিতীয় স্ট্যাটাস রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে। সেখানে ২০ জনের বেশি সাক্ষীর ইতিমধ্যেই বয়ান নেওয়া হয়েছে। নাবালিকার পরিবারকে ডিস্ট্রিক্ট লিগ্যাল সার্ভিস অথরিটির পক্ষ থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার উল্লেখ রয়েছে রিপোর্টে। যদিও সেই টাকা পরিবার এখনও হাতে পেয়েছে বলে স্পষ্ট নয়।

আবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন হাঁসখালি কাণ্ডে নির্যাতিতার মা–বাবা। এবার পুলিশের বিরুদ্ধে পদক্ষেপের দাবিতে কলকাতা হাইকোর্টে গেলেন তাঁরা। অভিযোগ, ঘটনার দিন থানায় গেলেও তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তাঁদের মেয়ে যেদিন আক্রান্ত হয়, সেদিন তাঁদের অভিযোগ নিতে অস্বীকার করা হয়। নির্যাতিতার বাবা–মায়ের মূল অভিযোগ, হাঁসখালি থানার আইসি এবং সেকেন্ড অফিসারের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে ফের শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

সিবিআই ঠিক কী করছে?‌ হাঁসখালি গণধর্ষণ কাণ্ডে তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। সিবিআই সূত্রে খবর, এবার দ্বিতীয় স্ট্যাটাস রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে। সেখানে ২০ জনের বেশি সাক্ষীর ইতিমধ্যেই বয়ান নেওয়া হয়েছে। নাবালিকার পরিবারকে ডিস্ট্রিক্ট লিগ্যাল সার্ভিস অথরিটির পক্ষ থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার উল্লেখ রয়েছে রিপোর্টে। যদিও সেই টাকা পরিবার এখনও হাতে পেয়েছে বলে স্পষ্ট নয়। এই ঘটনায় সমরেন্দ্র গয়ালি, ব্রজ গয়ালি–সহ মোট ৮ জন গ্রেফতার হয়েছে। আগে হাঁসখালি কাণ্ডে ২ মে প্রথম স্টেটাস রিপোর্ট জমা দিয়েছিল সিবিআই। আর দ্বিতীয় স্ট্যাটাস রিপোর্ট লিখিত আকারে জমা দেওয়ার জন্য সিবিআই এক সপ্তাহ সময় চেয়েছে।

কী দাবি নির্যাতিতার পরিবারের?‌ নির্যাতিতা পরিবারের দাবি, পুলিশের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে। কলকাতা হাইকোর্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাঁদের বক্তব্য লিখিতভাবে জমা দেওয়ার জন্য। পাশাপাশি হাঁসখালির নির্যাতিতার পরিবার. ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছে। নির্যাতিতার বাবা–মায়ের আইনজীবীর দাবি, বিচারপতি তাঁর পদাধিকার বলে এই নির্দেশ দিতেই পারেন। এই বিষয়ে রাজ্যকেও তিন সপ্তাহের মধ্যে লিখিত হলফনামা পেশের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ২৮ জুন রয়েছে এই মামলার পরবর্তী শুনানি।

আর কী ঘটেছে আদালতে?‌ আজ, সোমবার এই মামলায় আরও একটি মামলা দায়ের হয়েছে। বিশ্বজিৎ মণ্ডল নামে এক ব্যক্তি বিজেপির বিরুদ্ধে নির্যাতিতার নাম প্রকাশ্যে আনা নিয়ে মামলা করেছেন। হাঁসখালি কাণ্ড খতিয়ে দেখতে নিজস্ব একটি ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং কমিটি পাঠায় বিজেপি। সেখানেই নির্যাতিতার নাম প্রকাশ্যে বলেন তাঁরা। যা আইনবিরুদ্ধ। এছাড়া সিবিআই তদন্ত চলাকালীন বিজেপি নেতাদের আসায় তদন্ত প্রভাবিত হতে পারে বলে তাঁর আবেদনে উল্লেখ করেছেন তিনি।

বন্ধ করুন