বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সংক্রমণ রুখতে বাংলায় ফিরছে ‘মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন’, তৈরি হচ্ছে তালিকা
কনটেইনমেন্ট জোনের তালিকা তৈরি শুরু হয়েছে (প্রতীকী ছবি)
কনটেইনমেন্ট জোনের তালিকা তৈরি শুরু হয়েছে (প্রতীকী ছবি)

সংক্রমণ রুখতে বাংলায় ফিরছে ‘মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন’, তৈরি হচ্ছে তালিকা

  • গত কয়েকদিনে সংক্রমণের প্রবনতার উপর ভিত্তি করে এই কনটেইনমেন্ট জোন হবে

কোভিডের প্রথম ঢেউতে অনেকেই পরিচিত হয়েছিলেন কনটেইনমেন্ট জোন সম্পর্কে। তবে ধীরে ধীরে সেই জোনগুলিকে তুলে দেওয়া হয়। এবার ফের মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন করার দিকে এগোচ্ছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যেই এব্যাপারে তালিকা তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

প্রশাসন সূত্রে খবর, কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলাকে এই ধরণের কনটেইনমেন্ট জোন করার ব্যাপারে তালিকা তৈরির জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে গণপরিবহণ, অফিস, বাজার. দোকান খোলার ক্ষেত্রে আগামী ৩০শে জুন পর্যন্ত নানা বিধিনিষেধ লাগু রয়েছে। এবার মূলত শহরাঞ্চলগুলিতে সংক্রমণ কমানোটাই সরকারের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, হাওড়াতে আপাতত ১৮টি কনটেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়েছে। কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণার জন্য আলাদা কনটেইনমেন্ট জোনের তালিকা তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। তবে সবটাই নির্ভর করছে কতগুলি অ্যাকটিভ কেস গত কয়েকদিনে রয়েছে তার উপর। শুধু উত্তর ২৪ পরগনাতেই এই ধরণের ১৫টি জোন হতে পারে বলে সূত্রের খবর।

কলকাতা কর্পোরেশন এলাকাতে এই ধরণের কনটেইমেন্ট জোন শীঘ্রই ঘোষণা করা হবে। এব্যাপারে একটি রিপোর্ট তৈরির ব্যাপারেও বলা হয়েছে। প্রসঙ্গত ২০২০ সালে মে মাসে কলকাতা শহরে ৩০০টি কনটেইনমেন্ট জোন ছিল। তবে জুন মাসে সেই কনটেইনমেন্ট জোন বেড়ে দাঁড়িয়েছিল প্রায় হাজারটি। এক সরকারি আধিকারিকের দাবি, একাধিক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে করোনা আক্রান্ত কোনও ব্যক্তি হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। কিন্তু তাঁর পরিবারের সদস্যরা বাজারে যাচ্ছেন। কনটেইনমেন্ট জোন ঘোষণা হলে এই প্রবণতা আটকানো যাবে।

 

বন্ধ করুন