বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হাওড়ায় তাণ্ডব, বাংলায় শান্তির আর্জি ইমামদের, 'প্রশাসন কড়া হাতে মোকাবিলা করুক'
হাওড়ার বিভিন্ন এলাকায় এদিন অশান্তির আগুন। (PTI Photo) (PTI)

হাওড়ায় তাণ্ডব, বাংলায় শান্তির আর্জি ইমামদের, 'প্রশাসন কড়া হাতে মোকাবিলা করুক'

  • দিনভর অশান্তি। অগ্নিগর্ভ হাওড়ার বিভিন্ন এলাকা। অশান্তি যাতে না ছড়ায় সেকারণে হাওড়ায় ইন্টারনেট পরিষেবাও আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

পয়গম্বর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জের। হাওড়ার বিভিন্ন এলাকা বৃহস্পতিবার থেকে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি। খোদ মুখ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবার ডোমজুড়ে অবরোধ তুলতে হাতজোড় করে অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু সেই অনুরোধে কাজ হয়নি। শুক্রবার সকাল থেকে দফায় দফায় উত্তপ্ত হল রাজ্যের বিভিন্ন এলাকা। এবার শান্তি রক্ষার জন্য আবেদন করলেন ইমামরা।

এদিন ইমামদের পক্ষ থেকে আবেদন জানিয়ে বলা হয়েছে, বিক্ষিপ্তভাবে যে ঘটনা হয়েছে তা কাম্য নয়। সকলকে শান্তিরক্ষার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে ইমামদের তরফে। কোথাও যাতে অবরোধ করে, গাড়ি জ্বালিয়ে, দোকান জ্বালিয়ে অশান্তি পাকানো না হয় সেকারণে বিশেষভাবে শান্তি রক্ষার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে ইমামদের তরফে।

বেঙ্গল ইমাম অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহম্মদ ইয়াহিয়া জানিয়েছেন, প্রশাসন ভালো কাজ করেছে। লাঠি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করেছে। যারা প্রশাসনের উপর হামলা করছে, বোমা ছুঁড়ছে তাদের ধিক্কার। বাংলার কোথাও যাতে এই অশান্তি না ছড়ায়। প্রশাসন কড়া হাতে মোকাবিলা করুক। 

এদিকে বৃহস্পতিবার সাংবাদিক বৈঠকেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বার বারই শান্তিরক্ষার জন্য আবেদন করেছিলেন। এরপর একটি ভিডিয়ো বার্তা তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই বার্তায় এক ইমাম সকলকে শান্ত হওয়ার জন্য আবেদন করেন। কোথাও যাতে অশান্তি পাকানো না হয় সেব্যাপারে অনুরোধ করা হয়। 

এদিনের অশান্তির পরিপ্রেক্ষিতে শান্তিরক্ষার জন্য় বিভিন্ন মহল থেকে আবেদন করা হচ্ছে। দিনভর গণ্ডগোলের জেরে সাধারণ মানুষ সমস্যায় পড়ে যান। একাধিক ট্রেন বাতিল করা হয়। রাস্তায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে পড়েন সাধারণ মানুষ। একাধিক দোকানে ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। সেকারণে নতুন করে আর আন্দোলন চাইছেন না কেউ। 

বন্ধ করুন