বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মমতার পাড়ার বুথেও ছাপ্পা হয়েছে, দাবি অগ্নিমিত্রার
অগ্নিমিত্রা পাল।

মমতার পাড়ার বুথেও ছাপ্পা হয়েছে, দাবি অগ্নিমিত্রার

  • অগ্নিমিত্রা বলেন, ‘আজকে MLA হস্টেলে আমাদের বিধায়কদের তালাবন্ধ করে রেখেছিল। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ি পুলিশ দিয়ে ঘিরে রেখে রিগিং করেছে তৃণমূল।

এমএলএ হস্টেলে বিধায়কদের তালাবন্ধ করে রেখে কলকাতা পুরভোটে রিগিং করেছে তৃণমূল। এমনই অভিযোগ তুললেন বিজেপি মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল। রবিবার সন্ধ্যায় রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করার পর এই দাবি করেন তিনি। সঙ্গে তাঁর দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর ভোটকেন্দ্র ভবানীপুর মিত্র ইন্সটিটিউশনেও ছাপ্পা দিয়েছে তৃণমূল। অগ্নিমিত্রার প্রশ্ন, বিজেপিকে কেন এত ভয় পাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়?

অগ্নিমিত্রা বলেন, ‘আজকে MLA হস্টেলে আমাদের বিধায়কদের তালাবন্ধ করে রেখেছিল। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ি পুলিশ দিয়ে ঘিরে রেখে রিগিং করেছে তৃণমূল। এর থেকেই বোঝা যায় মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী বিজেপিকে ঠিক কতটা ভয় পেয়েছেন। ইমেজ মেকওভার করার জন্য উনি ও যুবরাজ যে কথা বলেছিলেন সেকথা ওনারা রাখতে পারলেন না। অবাধ নির্বাচন হলে পরাজয়ের ভয়ে কথা রাখতে পারেননি ওরা।’

এমএলএ হস্টেলে বিধায়কদের তালাবন্ধ করে রেখে কলকাতা পুরভোটে রিগিং করেছে তৃণমূল। এমনই অভিযোগ তুললেন বিজেপি মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল। রবিবার সন্ধ্যায় রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করার পর এই দাবি করেন তিনি। সঙ্গে তাঁর দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর ভোটকেন্দ্র ভবানীপুর মিত্র ইন্সটিটিউশনেও ছাপ্পা দিয়েছে তৃণমূল। অগ্নিমিত্রার প্রশ্ন, বিজেপিকে কেন এত ভয় পাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়?

অগ্নিমিত্রা বলেন, ‘আজকে MLA হস্টেলে আমাদের বিধায়কদের তালাবন্ধ করে রেখেছিল। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ি পুলিশ দিয়ে ঘিরে রেখে রিগিং করেছে তৃণমূল। এর থেকেই বোঝা যায় মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী বিজেপিকে ঠিক কতটা ভয় পেয়েছেন। ইমেজ মেকওভার করার জন্য উনি ও যুবরাজ যে কথা বলেছিলেন সেকথা ওনারা রাখতে পারলেন না। অবাধ নির্বাচন হলে পরাজয়ের ভয়ে কথা রাখতে পারেননি ওরা।’

 

তিনি বলেন, ‘রাজ্যে গণতন্ত্রের নামে এই প্রহসন চলতে পারে না। ওনারা নিজেদের ভাবমূর্তি বদলানোর জন্য অবাধ নির্বাচনের কথা বলেছিলেন। ওনারা সামনে এক কথা বলেন আর পিছনে আরেকটা কাজ করেন। আজকে হরিশ মুখার্জি স্ট্রিটে মিত্র ইন্সটিটিউশনের পাশে হরিশ পার্কে শয়ে শয়ে স্কুল কলেজের ছেলেমেয়ে এনে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছিল। আপনারা (সাংবাদিকরা) সামনের দিকে ছিলেন। আর পিছনের দরজা দিয়ে ছাপ্পা হয়েছে।’

 

বন্ধ করুন