বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Alert: কীভাবে Mobile অ্যাপে প্রতারণার ফাঁদ ? গেমের ছলে ৭৫ কোটি হাওয়া
কলকাতার ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে উদ্ধার কোটি কোটি টাকা। সৌজন্যে এএনআই

Alert: কীভাবে Mobile অ্যাপে প্রতারণার ফাঁদ ? গেমের ছলে ৭৫ কোটি হাওয়া

  • গোটা দেশ জুড়ে ছড়ানো রয়েছে এই প্রতারণার জাল। গোয়েন্দাদের ধারণা সেই অ্য়াপের মাধ্যমে অর্জিত অবৈধ কমিশনের টাকাই জমা হয়েছিল গার্ডেনরিচের ব্যবসায়ী আমির খানের বাড়িতে। নগদ অঙ্কেই সেই টাকা রাখা হয়েছিল খাটের নীচে। সম্ভবত পরবর্তী ক্ষেত্রে সেই টাকা অন্যত্র বিনিয়োগ করার চেষ্টা করা হত।

গার্ডেনরিচে থানার কাছেই একেবারে সাদামাটা বাড়ি। সামনে লোহার গেট। সেই বাড়ির খাটের নীচে থেকে উদ্ধার প্রায় ৮ কোটি। ইডির আধিকারিকরা এখনও নোট গোনার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। টাকার অঙ্ক বেড়ে ১৫ কোটি হতে পারে। মোবাইল গেম অ্যাপের মাধ্যমে বিপুল টাকা প্রতারণার অভিযোগ।

কিন্তু কীভাবে মোবাইল গেম অ্য়াপের মাধ্যমে প্রতারণার ফাঁদ পাতা হয়? গোয়েন্দা সূত্রে খবর, মোবাইল গেমের অ্যাপের মাধ্যমে বড় অঙ্কের টাকা জেতার লোভ দেখানো হয়। অত্যন্ত সহজ কিছু প্রশ্ন, বা ধাঁধার সমাধান করার জন্য প্রথম ধাপে বলা হয়। এই সহজ গেমের ফাঁদে পা দিয়ে ফেলেন অনেকেই।

এরপরই অ্যাপের তরফে ৩-৪ হাজার টাকা জেতার লোভ দেখানো হয়। কিছু টাকা জিতেও যান অনেকেই। এরপরই ধাপে ধাপে তাঁরা অ্য়াপের পরবর্তী ধাপের দিকে এগোতে থাকেন। তখন অ্যাপের তরফে জানানো হয় প্রথম দিকে বেশি টাকা খাটালে পরে আয় আরও বাড়তে পারে। এরপর আসল ছক! সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হয়ে গেলেই সেই অ্যাপ ডি অ্যাক্টিভেট হয়ে যায়। সেই অ্যাপে আর ঢুকতে পারেন না ওই ব্যক্তি। হাওয়া হয়ে যায় টাকা। 

গোটা দেশ জুড়ে ছড়ানো রয়েছে এই প্রতারণার জাল। গোয়েন্দাদের ধারণা সেই অ্য়াপের মাধ্যমে অর্জিত অবৈধ কমিশনের টাকাই জমা হয়েছিল গার্ডেনরিচের ব্যবসায়ী আমির খানের বাড়িতে। নগদ অঙ্কেই সেই টাকা রাখা হয়েছিল খাটের নীচে। সম্ভবত পরবর্তী ক্ষেত্রে সেই টাকা অন্যত্র বিনিয়োগ করার চেষ্টা করা হত। এভাবে বাজার থেকে প্রায় ৭৫ কোটি টাকার প্রতারণা করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। তবে ইদানিং সেই অ্য়াপটিকে ধাপে ধাপে ডি অ্য়াক্টিভেট করার চেষ্টা হচ্ছিল। কিন্তু তার আগেই বড় পর্দাফাঁস করে দিল ইডি।

বন্ধ করুন