বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Online bank fraud in Kolkata: নতুন সিম কার্ড তুলে ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ৭২ লক্ষ টাকার প্রতারণা

Online bank fraud in Kolkata: নতুন সিম কার্ড তুলে ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ৭২ লক্ষ টাকার প্রতারণা

সিমকার্ডের সাহায্যে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ। প্রতীকী ছবি

ধৃতরা দক্ষিণেশ্বরের আলমবাজারের বাসিন্দা। যে ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা খোয়া গিয়েছে তিনি পোস্তার বাসিন্দা। অভিযোগ, গত মাসে ওই ব্যবসায়ী পাওনাদারকে একটি চেক দিয়েছিলেন। খোঁজখবর নিয়ে তিনি জানতে পারেন তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পর্যাপ্ত টাকা নেই। 

অভিনব কায়দায় এক ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠল। থানায় সিম কার্ড হারিয়ে যাওয়ার মিথ্যে অভিযোগ জানিয়ে পুরনো সিম কার্ড ব্লক করে নতুন সিম কার্ড তুলে তার সাহায্যে অনলাইন ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমে ৭৫ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় পুলিশ দুজনকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতদের নাম হল দীপক শিকদার এবং জগদীশ সরদার। তাদের জেরা করে এমনই তথ্য জানতে পেরেছে পুলিশ।

তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন, ধৃতরা দক্ষিণেশ্বরের আলমবাজারের বাসিন্দা। যে ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা খোয়া গিয়েছে তিনি পোস্তার বাসিন্দা। অভিযোগ, গত মাসে ওই ব্যবসায়ী পাওনাদারকে একটি চেক দিয়েছিলেন। খোঁজখবর নিয়ে তিনি জানতে পারেন তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পর্যাপ্ত টাকা নেই। এরপর তিনি জানতে পারেন, ওই পরিমাণ টাকা তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। অথচ তিনি ফোনে কোনও এসএমএস পাননি। আরও খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারেন তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত মোবাইল নম্বরটি সুইচ অফ রয়েছে। এরপর থানায় অভিযোগ করেন।

তদন্ত নেমে পুলিশ জানতে পারে, ধৃতদের মধ্যে একজন প্রথমে ওই ব্যবসায়ীর ফোন নম্বরের খোঁজ করে। এরপর তারা থানায় গিয়ে ওই নম্বরের সিমটি হারিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করে। তারপরে নম্বরটি ব্লক হয়ে যায় এবং তারা ওই নম্বরের নতুন সিম তুলে নেয়। যার ফলে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উঠে গেলেও ওই ব্যবসায়ী কোনও এসএমএস পাননি। পুলিশ জানতে পেরেছে, ৭২ লক্ষ টাকার মধ্যে দীপকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা গিয়েছিল। সেই টাকা দিয়ে গয়না কিনেছিল। বাকি টাকা আরও বেশ কয়েকজনের অ্যাকাউন্টে যায়। এই ঘটনার সঙ্গে কোনও চক্র জড়িয়ে আছে কিনা পাশাপাশি ব্যাঙ্কের কর্মীদের একাংশের যোগ রয়েছে কিনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন