বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ছয় কিমি যেতে ৯,২০০ টাকা! না দেওয়ায় অক্সিজেন খুলে করোনা আক্রান্ত শিশুদের নামাল অ্যাম্বুলেন্স
পার্ক সার্কাস থেকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের দূরত্ব ছয় কিলোমিটারেরও কম (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
পার্ক সার্কাস থেকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের দূরত্ব ছয় কিলোমিটারেরও কম (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

ছয় কিমি যেতে ৯,২০০ টাকা! না দেওয়ায় অক্সিজেন খুলে করোনা আক্রান্ত শিশুদের নামাল অ্যাম্বুলেন্স

  • ন'মাসের শিশুর অক্সিজেন নল খুলে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

পার্ক সার্কাস থেকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের দূরত্ব ছয় কিলোমিটারেরও কম। আর সেই পথটুকু যাওয়ার জন্য ৯,২০০ টাকা হাঁকল অ্যাম্বুলেন্স। অভিযোগ, দাবিমতো টাকা দিতে না পারায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত ন'মাসের শিশু, তার সাড়ে ন'বছরের দাদা এবং তাদের মা'কে অ্যাম্বুলেন্স থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। খুলে দেওয়া হয় ন'মাসের শিশুর অক্সিজেন নল।

আরও পড়ুন : অতিরিক্ত স্যানিটাইজার ব্যবহারে বিপদ, সতর্ক করল স্বাস্থ্য মন্ত্রক

শুক্রবার রাতে এমনই অমানবিক অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন হুগলির ঝিকিরার বাসিন্দা শ্যামল পাল। তিনি জানিয়েছেন, দুই ছেলে পার্ক সার্কাসের ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেলথে ভরতি ছিল। শুক্রবার তাদের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তারপর তাদের মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়ার অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করার চেষ্টা করেন। 

আরও পড়ুন : ফোনে জানা যাবে করোনা পরীক্ষার ফল, খরচ ৪০০ টাকা, নয়া ডিভাইস তৈরি IIT খড়্গপুরের

শ্যামল বলেন, ‘এই হাসপাতাল থেকে আমার ছেলেদের কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য ৯,২০০ টাকা চায় অ্যাম্বুলেন্স চালক। যে দূরত্ব মাত্র ছ'কিলোমিটার। আমি বলি যে এত টাকা দিতে পারব না এবং তার কাছে হাতজোড় করে আর্জি জানাই। কিন্তু সে কোনও ভ্রূক্ষেপ করেনি। উলটে আমার ছোটো ছেলের অক্সিজেন খুলে নেয় এবং দুই ছেলে ও ওদের মা'কে অ্যাম্বুলেন্স যেতে জোর করে নামিয়ে দেওয়া হয়।’

আরও পড়ুন : কোভিড ঠিক সাধারণ সর্দি-কাশির মতো, করোনাজয় করে ফিরে জানালে শতায়ু হাল্লাম্মা

পরে পার্ক সার্কাসের হাসপাতালের চিকিৎসকদের মধ্যস্থতায় ২,০০০ টাকায় যেতে রাজি হয় অ্যাম্বুলেন্স চালক। শ্যামল বলেন, ‘আমি ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেলথের চিকিৎসকদের কাছে কৃতজ্ঞ। তাঁদের জন্যই আমার ছেলেদের কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়া সম্ভবপর হয়েছে।'

বন্ধ করুন