বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জিএসটি পরিষদের বৈঠক ডাকা হোক, নির্মলাকে চিঠি অমিতের, দাবি ক্ষতিপূরণ মেটানোর
জিএসটি বৈঠক এড়ানো নিয়ে, কেন্দ্রকে পত্রবোমা অমিতের। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
জিএসটি বৈঠক এড়ানো নিয়ে, কেন্দ্রকে পত্রবোমা অমিতের। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

জিএসটি পরিষদের বৈঠক ডাকা হোক, নির্মলাকে চিঠি অমিতের, দাবি ক্ষতিপূরণ মেটানোর

  • জিএসটি বৈঠক এড়ানো নিয়ে এবার কেন্দ্রের দিকে পত্রবোমা দাগলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র।

জিএসটি বৈঠক এড়ানো নিয়ে এবার কেন্দ্রের দিকে পত্রবোমা দাগলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। কেন জিএসটি বৈঠক এড়িয়ে যাচ্ছে কেন্দ্র?‌ তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনকে কড়া চিঠি লিখেছেন তিনি। পাশাপাশি রাজ্যের আর্থিক ঘাটতি মেটাতে কী কী পদক্ষেপ করা যায়, তা নিয়েও কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছে রাজ্য।

এছাড়াও গত দু’‌বারের আর্থিক সত্রে জিএসটি বৈঠক ডাকা হয়নি বলে অভিযোগ তাঁর। শেষবার গত বছরের ডিসেম্বরে এই বৈঠক ডাকা হলেও তারপর থেকে আর তা করা হয়নি বলেও অভিযোগ অমিতবাবুর। করোনা-কালে রাজ্যের আর্থিক পরিস্থিতি নিয়ে অন্তত ভার্চুয়াল বৈঠক করা যেতে পারত, কিন্তু কেন্দ্রের তরফে সেটাও করা হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।অবশেষে সংবিধান মনে করিয়ে দিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনকে কড়া চিঠি লিখেছেন তিনি।

ওই চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘‌ করোনার এই অতিমারির মধ্যে রাজ্যের আর্থিক পরিস্থিতি বিপন্ন হয়ে পড়েছে। একাধিক পরিষেবার ক্ষেত্রে সংকট দেখা দিয়েছে। পরিষেবা সুষ্ঠুভাবে চালাতে আর্থিক সংস্থানের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। সেক্ষেত্রে কীভাবে এই সমস্যা মেটানো যায়, তা নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে। এমনকী, সংবিধান স্মরণ করিয়ে তিনি লিখেন, ‘‌সংবিধানের ২৭৯ এ অনুচ্ছেদ মেনে জিএসটি পরিষদ তৈরি হয়েছিল। তাই সংবিধান অনুযায়ীই তাকে চালাতে হবে।কারণ, যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোয় জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে অত্যন্ত জরুরি।’‌

তিনি আরও লিখেছেন, এর আগে প্রত্যেক তিন মাস অন্তর এই বৈঠক হত। কিন্তু শেষ বৈঠকের পর সাত মাস কেটে গেলেও এখনও কোনও পদক্ষেপ নেয়নি কেন্দ্র। তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, জিএসটি নিয়ে কেন্দ্রের কাছে রাজ্য যে ক্ষতিপূরণ পায়, সেটাও পাওয়া যায়নি।

বন্ধ করুন