বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিদ্যাসাগরের জন্মদিনে বাংলায় টুইট অমিত শাহের, ইংরেজিতে শ্রদ্ধা জানালেন মমতা
বিদ্যাসাগরের জন্মদিনে টুইট অমিত শাহ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের 
বিদ্যাসাগরের জন্মদিনে টুইট অমিত শাহ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের 

বিদ্যাসাগরের জন্মদিনে বাংলায় টুইট অমিত শাহের, ইংরেজিতে শ্রদ্ধা জানালেন মমতা

  • বিদ্যাসাগরের জন্মদিন উপলক্ষে টুইট করে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও।

ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্মদিন উপলক্ষে টুইট করে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অতিম শাহ সহ বিশিষ্ট রাজনীতিকরা। বিদ্যাসাগরের জন্মদিন উপলক্ষে টুইট করে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও।

এদিন বিদ্যাসাগরের জন্মদিন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইট করে লেখেন, 'বঙ্গ নবজাগরণের অগ্রদূত বিদ্যাসাগর তাঁর প্রগতিশীল চিন্তাধারা দিয়ে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য ভাবাদর্শের সমন্বয়ে, কুসংস্কার মুক্ত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন। বর্ণবৈষম্য বিরোধী বিদ্যাসাগরের হাতেই বাংলা ভাষা হয়েছে সজীব প্রাণবন্ত। এই মহামানবের জন্ম বার্ষিকীতে জানাই প্রণাম।'

এদিকে সম্প্রতি জাতীয় স্তরে নিজেকে বিজেপি বিরোধী প্রধান মুখ হিসেবে তুলে ধরতে চাওয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধারাবাহিক ভাবে ইংরেজিতেই টুইট করেন। বাংলার বাইরের মানুষের কাছে পৌঁছে যেতেই বাংলা পাশাপাশি ইংরেজিতে টুইট করেন মমতা। এদিন বিদ্যাসাগরের জন্মদিনেও ইংরেজিতে টুইট করেন মমতা। লেখেন, 'ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্মবার্ষিকীতে তাঁকে বিনম্র শ্রদ্ধা। তিনি ছিলেন সর্বশ্রেষ্ঠ সমাজ সংস্কারকদের একজন। তিনি নিরলসভাবে ন্যায় ও সমতার জন্য লড়াই করেছিলেন। আমরা তাঁর শিক্ষার কাছে ঋণী রয়েছি।' উল্লেখ্য তাঁর শেষ বাংলা টুইট ৯ মে কবিগুরু রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মদিবস উপলক্ষে। প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে হিন্দি দিবসে হিন্দিতে টুইট করেছিলেন মমতা। তার আগে গণেশ চতুর্থীতে মারাঠিতে টুইট করেছিলেন মমতা।

এদিকে বিদ্যাসাগরের জন্মদিনন উপলক্ষে টুইট করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী, নীতিন গড়করি। মমতার টুইটটি রিটুইট করে শ্রদ্ধা জানান রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। এদিকে শিক্ষাবিদ, সমাজ সংস্কারক, নবজাগরণের প্রাণপুরুষ, বর্ণ পরিচয়ের স্রষ্টা হিসেবে পরিচিত বিদ্যাসাগরকে জন্মদিনটিকে শিক্ষক দিবস হিসেবে ঘোষণা করার দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে। এই দাবি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে চিঠি লেখা হয়েছে বাংলা পক্ষর তরফে। তাতে সই রয়েছে বহু বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, কবি, সঙ্গীতশিল্পীদের।

 

বন্ধ করুন