'গুলি মারো' স্লোগানে গ্রেফতার এক বিজেপি নেতা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
'গুলি মারো' স্লোগানে গ্রেফতার এক বিজেপি নেতা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

'গদ্দারদের গুলি মারার' স্লোগানে পুলিশের জালে আরও এক BJP কর্মী

  • 'গুলি মারো' স্লোগানের জন্য কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সোমবারই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

'গুলি মারো' স্লোগানের জন্য কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সোমবারই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেদিন রাতেই সোদপুরের ঘোলা থেকে এক বিজেপি নেতাকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এর ফলে এই ঘটনায় মোট গ্রেফতারির সংখ্যা দাঁড়াল চার।

আরও পড়ুন : দেশের 'গদ্দারদের গুলি মারার' স্লোগানে গ্রেফতার ৩ BJP কর্মী

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) সমর্থনে রবিবার শহিদ মিনারে জনসভা করেন অমিত শাহ। সেই সভায় যাওয়ার পথে বিজেপির একটি মিছিল থেকে দেশের গদ্দারদের গুলি মারার স্লোগান ওঠে। তা নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়।

আরও পড়ুন : শুরু হল বিজেপির ‘আর নয় অন্যায়’, পুরভোটের মুখে সেই মিস কলেই ফিরলেন দিলীপ ঘোষরা

যে এলাকায় স্লোগান দেওয়া হয়েছিল শনিবারই সেখানকার ভিডিয়ো ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশ। রাতে নিউ মার্কেট থানায় রুজু হয় মামলা। তারপর তিন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতদের নাম - ধ্রুব বসু, সুরেন্দ্রকুমার তিওয়ারি ও পঙ্কজ প্রসাদ। সোমবার তাঁদের ব্যাঙ্কশাল কোর্টে তোলা হলে জামিন পান ধ্রুব। পঙ্কজ ও সুরেন্দ্রকুমারকে দু'দিনের পুলিশে হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক।

আরও পড়ুন : অমিত শাহের সভায় পিস্তল নিয়ে হাজির বিজেপি সমর্থক

এরপর রাতে ঘোলা ও নিউ মার্কেট থানার যৌথ অভিযানে ঘোলার বাড়ি থেকে সুজিতকে গ্রেফতার করা হয়। এদিন তাঁকে আদালতে তোলা হবে। এদিকে, ভিডিয়ো ফুটেজ দেখে আরও ২৫ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

বন্ধ করুন