বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনায় প্রাণ হারালেন আরও এক যোদ্ধা, প্রয়াত হরিদেবপুর থানার ASI
হরিদেবপুর থানার অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর তুষারকান্তি কুলে (ছবি সৌজন্য ফেসবুক, কলকাতা পুলিশ)
হরিদেবপুর থানার অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর তুষারকান্তি কুলে (ছবি সৌজন্য ফেসবুক, কলকাতা পুলিশ)

করোনায় প্রাণ হারালেন আরও এক যোদ্ধা, প্রয়াত হরিদেবপুর থানার ASI

  • করোনা মোকাবিলায় একেবারে সামনের সারিতে ছিলেন তুষারবাবু।

করোনাভাইরাসে প্রাণ হারালেন কলকাতা পুলিশের আরও এক আধিকারিক। প্রয়াত হলেন হরিদেবপুর থানার অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর (এএসআই) তুষারকান্তি কুলে।

পুলিশের তরফে জানানো হয়, করোনা মোকাবিলায় একেবারে প্রথম সারিতে ছিলেন তুষারবাবু। সম্প্রতি তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা নিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সকালে হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। 

তুষারবাবুর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করে কলকাতা পুলিশের ফেসবুক পেজে বলা হয়, ‘অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইনস্পেক্টর তুষার কান্তি কুলে। হরিদেবপুর থানায় কর্মরত ছিলেন। একেবারে সামনের সারিতে থেকে লড়ছিলেন করোনা-যুদ্ধে। কোভিডে আক্রান্ত হয়ে সম্প্রতি ভর্তি হন হাসপাতালে। প্রাণ হারালেন আজ। প্রয়াত সহকর্মীর শোকসন্তপ্ত পরিবারের পাশে আমরা আছি, এবং থাকব সর্বতোভাবে।’

শোকপ্রকাশ করেছেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মাও। টুইটারে তিনি বলেন, ‘এএসআই তুষারকান্তি কুলের প্রয়াণের দুঃখের খবর জানাচ্ছি। রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। #করোনা শহিদ।’

করোনার প্রকোপ শুরুর পর থেকে কলকাতা পুলিশের ২,০০০-এর বেশি কর্মী-আধিকারিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের।  মাস্ক, ফেস শিল্ড, গ্লাভস এবং স্যানিটাইজার-সহ সুরক্ষাবর্মও ব্যবহার করছেন তাঁরা। করোনা আক্রান্ত কর্মীদের সঙ্গে নিরন্তর যোগাযোগ বজায় রাখছে কলকাতা পুলিশের ওয়েলফেয়ার সেল। তৈরি করা হয়েছে 'নিরাময়' অ্যাপ। করোনা পরিস্থিতিতে বাহিনীর মনোবল বাড়তে প্রথম থেকেই সচেষ্ট হয়েছে কলকাতা পুলিশের শীর্ষ মহল। কোথাও কোনও পুলিশকর্মী-আধিকারিক করোনায় আক্রান্ত হলে সহকর্মীদের মনোবল বাড়াতে এগিয়ে এসেছেন পুলিশ কমিশনার। যিনি নিজেও করোনার কবলে পড়েছিলেন।

বন্ধ করুন