বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হাইকোর্টে রক্ষাকবচ চাওয়ার পরেই অসুস্থ অনুব্রত, ভর্তি এসএসকেএমে
অনুব্রত মণ্ডল। ফাইল ছবি।

হাইকোর্টে রক্ষাকবচ চাওয়ার পরেই অসুস্থ অনুব্রত, ভর্তি এসএসকেএমে

  • হাসপাতাল সূত্রের খবর, এসএসকেএমে আনার পরে তাকে হাসপাতালের উডর্বান ওয়ার্ডের ফার্স্ট ফ্লোরে ভর্তি করা হয়েছে। সার্জারি এবং মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসকরা তাঁকে দেখছেন।

ভোট-পরবর্তী হিংসা মামলায় দু দু'বার সিবিআই হাজিরা এড়িয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন বীরভূমের দোর্দণ্ডপ্রতাপ তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। সিবিআইয়ের হাজিরা না দেওয়ার কারণ হিসেবে তিনি অসুস্থতার কারণ জানিয়েছিলেন। পরপর দুবার হাজিরা এড়ানোয় তদন্তকারী সিবিআই আধিকারিকদের মনে তাঁর অসুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। সেই প্রশ্নের ইতি ঘটিয়ে বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন জানানো পরেই এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হল অনুব্রত মণ্ডলকে।

যদিও বিরোধীদের অনেকেরই প্রশ্ন অনুব্রত মণ্ডল কি সত্যি সত্যিই অসুস্থ হয়েছেন? হাসপাতাল সূত্রের খবর, এসএসকেএমে আনার পরে তাকে হাসপাতালের উডর্বান ওয়ার্ডের ফার্স্ট ফ্লোরে ভর্তি করা হয়েছে। সার্জারি এবং মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসকরা তাঁকে দেখছেন। তাঁর শারীরিক অবস্থা বুঝেই হাসপাতাল থেকে ছাড়ার বিষয়ে পরামর্শ দিতে পারেন চিকিৎসকরা।

বিজেপি কর্মী গৌরব সরকার খুনে নাম জড়িয়েছে অনুব্রত মণ্ডলের। একুশে বিধানসভা নির্বাচনের পরেই বহু বিজেপি কর্মী খুন হয়েছিলেন। অভিযোগ, সেই সময় বীরভূমের ওই বিজেপি কর্মী খুন হয়েছিলেন। তৃণমূলের বিজয় মিছিলের সময় ওই বিজেপি নেতাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল। ইতিমধ্যেই সেই ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। তারপরেই এই ঘটনায় বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠায় সিবিআই।

গত শুক্রবার তিনি সিবিআইয়ের তলবে হাজিরা দেননি। সেই সময় শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে হাজিরা এড়িয়ে গিয়েছিলেন। একইভাবে দ্বিতীয়বার বুধবারও শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে হাজিরা এড়িয়ে যান অনুব্রত মণ্ডল। তারই মাঝে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতারের আশঙ্কায় আজ বুধবার তিনি রক্ষাকবচ চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন করেছেন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি রয়েছে।

আইনজীবী মহলের একাংশের মতে, অনুব্রত মণ্ডল যে অসুস্থ রয়েছেন তা দেখানোর জন্যই তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এই বিষয়টি উল্লেখ করে কলকাতা হাইকোর্টের কাছে রক্ষাকবচ পেতে চাইছেন অনুব্রত মণ্ডল।

বন্ধ করুন