বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Scam Case: ‘‌আমি একজন বেতনভুক কর্মচারী, মালিক নই’‌, ইডি–কে অর্পিতার চাঞ্চল্যকর তথ্য
অর্পিতার ২ ফ্ল্যাটেই ‘হাফ-সেঞ্চুরি'! ৫০ কোটি টাকার সঙ্গে উদ্ধার সোনা, কয়েন, দলিল। 

Scam Case: ‘‌আমি একজন বেতনভুক কর্মচারী, মালিক নই’‌, ইডি–কে অর্পিতার চাঞ্চল্যকর তথ্য

  • সিজিও কমপ্লেক্সে ইডি দফতরের কনফারেন্স হলে পার্থ–অর্পিতাকে পাশপাশি বসিয়ে জেরা করা হয়। সেখানেই টিভিতে লাইভ টেলিকাস্ট তাঁদের দেখানো হয়। সেখানেই তাঁর মায়ের বাড়িতে ইডির হানা দেখে দু’হাত দিয়ে মুখ ঢাকেন অর্পিতা। আর বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটে ইডির প্রবেশ দেখে উত্তেজিত হয়ে পড়েন অর্পিতা।

একদিন আগেই ইডি অফিসারদের অর্পিতা মুখোপাধ্যায় জেরায় বলেছিলেন, এই বিপুল পরিমাণ টাকা তাঁর নয়। এই টাকা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। টালিগঞ্জ থেকে বেলঘরিয়া—অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে মোট ৫০ কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে। এবার আরও নতুন তথ্য দিলেন পার্থ ঘনিষ্ঠ অভিনেত্রী। আর তাতে ভালভাবে জড়িয়ে পড়লেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

জেরায় কী জানালেন অর্পিতা?‌ ইডি সূত্রে খবর, টিভিতে অর্পিতাকে দেখানো হয়, ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হচ্ছে বিপুল পরিমাণ টাকা। কোটি কোটি টাকার স্তূপ। এই লাইভ টেলিকাস্ট দেখে অর্পিতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দিকে তাকিয়ে বলেন, ‘স্যার, এত টাকা আমার বাড়িতে রাখা হয়েছিল? বিশ্বাস করুন। এত টাকার কথা আমি জানতাম না।’ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের কথা যদি সত্যি হয় তাহলে ধরে নিতে হবে এখানে বারবার এসে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ই টাকা রেখে যেতেন। এমনই মনে করছেন ইডির অফিসাররা।

আগে কী জানিয়েছিলেন অর্পিতা?‌ ইডির জেরায় অর্পিতা প্রথম জানিয়েছিলেন, ‘‌বাজেয়াপ্ত হওয়া এক টাকাতেও হাত দেওয়ার অধিকার ছিল না আমার। গয়না আলমারির লকারে থাকত। কয়েকটা আমি পরেছি। কিন্তু এই গয়নাতেও আমার কোনও অধিকার ছিল না।’‌ আর দ্বিতীয় দিনের জেরায় সামনে নিয়ে আসেন চাঞ্চল্যকর তথ্য। ইডি অফিসারদের অর্পিতা বলেন, ‘আমার নামে সম্পত্তি–কোম্পানি সবই আছে। কিন্তু বাস্তবে কোনও কিছুরই মালিক আমি নই। বলতে পারেন আমি একজন বেতনভুক কর্মচারী।’‌ এই কথা যখন অর্পিতা বলছিলেন তখন স্পিকটি নট অবস্থায় ছিলেন পার্থ বলে সূত্রের খবর।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ সিজিও কমপ্লেক্সে ইডি দফতরের কনফারেন্স হলে পার্থ–অর্পিতাকে পাশপাশি বসিয়ে জেরা করা হয়। সেখানেই টিভিতে লাইভ টেলিকাস্ট তাঁদের দেখানো হয়। সেখানেই তাঁর মায়ের বাড়িতে ইডির হানা দেখে দু’হাত দিয়ে মুখ ঢাকেন অর্পিতা। আর বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটে ইডির প্রবেশ দেখে উত্তেজিত হয়ে পড়েন অর্পিতা। আর যখন একের পর এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করছিলেন অর্পিতা তখন পার্থকে বেশ কয়েক বার চশমা খুলে চুপচাপ বসে থাকতে দেখা গিয়েছে বলে সূত্রের খবর।

বন্ধ করুন