বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জিজ্ঞাসা করলে পার্থদা বলতেন, দলের টাকা এটা, জেরায় ইডিকে জানালেন অর্পিতা
জিজ্ঞাসা করলে পার্থদা বলতেন, দলের টাকা এটা

জিজ্ঞাসা করলে পার্থদা বলতেন, দলের টাকা এটা, জেরায় ইডিকে জানালেন অর্পিতা

  • ইডিকে অর্পিতা জানিয়েছেন, ঘরে যে টাকা রয়েছে সেকথা তিনি জানলেও তার পরিমাণ যে এত বেশি সেটা জানতেন না তিনি। অর্পিতা বলেন, ‘এত টাকা নিয়ে আমাকে সব বলতো না পার্থদা। প্রশ্ন করলে বলত, এটা দলের টাকা। দলের ব্যাপার এটা।’

এই টাকা তাঁর নয়, এটা দলের ব্যাপার। টাকা নিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসা করলে এমনই বলতেন ‘পার্থদা’। জেরায় অর্পিতা মুখোপাধ্যায় একথা জানিয়েছেন বলে দাবি ইডি সূত্রের। শুক্রবার বিকেলে তাঁকে দল ও মন্ত্রিত্ব থেকে সরানোর পর মুখ খুলতে শুরু করেছেন পার্থও। অর্পিতার নানা দাবির সামনে ইচ্ছা না থাকলেও জবাব দিতে হচ্ছে তাঁকে। ইডির গোয়েন্দাদের ধারণা, এভাবেই ধীরে ধীরে পাওয়া যাবে নতুন তথ্য।

ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, জেরায় অর্পিতা বলেছেন, যে ঘরে টাকা থাকত সেখানে তাঁকে ঢুকতে কড়া ভাবে বারণ করে দিয়েছিলেন পার্থবাবু। কার্যত তাঁর নামে কেনা ফ্ল্যাটগুলিকে ব্যাঙ্ক হিসাবে ব্যবহার করতেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একাই ঢুকতেন ওই ঘরে। পার্থর বেশ কয়েকজন সহযোগী ওই ঘরগুলিতে টাকা রাখতে আসতেন তিনি।

ইডিকে অর্পিতা জানিয়েছেন, ঘরে যে টাকা রয়েছে সেকথা তিনি জানলেও তার পরিমাণ যে এত বেশি সেটা জানতেন না তিনি। অর্পিতা বলেন, ‘এত টাকা নিয়ে আমাকে সব বলতো না পার্থদা। প্রশ্ন করলে বলত, এটা দলের টাকা। দলের ব্যাপার এটা।’ যা মিলে যাচ্ছে বিরোধীদের দাবির সঙ্গে।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে গত শুক্রবার টাকা উদ্ধারের পর থেকেই বিরোধীরা দাবি করছে এই টাকার সঙ্গে যোগ রয়েছে তৃণমূলের। দল ও দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশ্রয় ছাড়া এই বিপুল পরিমাণ টাকা জোগাড় করা সম্ভব নয় বলেও দাবি তাদের। এই অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে বাম ও বিজেপি। যদিও তৃণমূলের দাবি, পার্থর টাকার সঙ্গে দলের কোনও যোগ নেই।

 

বন্ধ করুন