বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Sealdah Metro: উদ্বোধনের একদিন আগে আমন্ত্রণ মুখ্যমন্ত্রীকে, শিয়ালদহ মেট্রো নিয়ে অসৌজন্য

Sealdah Metro: উদ্বোধনের একদিন আগে আমন্ত্রণ মুখ্যমন্ত্রীকে, শিয়ালদহ মেট্রো নিয়ে অসৌজন্য

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর সকালেই দিলীপ ঘোষ সুর চড়িয়ে বলেন, ‘‌এটুকু যদি তোমাদের মান–মর্যাদা থাকে, কেন্দ্রের জিনিস নেবে না, তাহলে চড়বে না ওখানে, তাহলে বলবো বাপের বেটা।’‌ সোমবার দুপুরের বিমানে মুখ্যমন্ত্রী উত্তরবঙ্গ রওনা হতে পারেন। সেক্ষেত্রে এই অনুষ্ঠানে তিনি যাবেন না। সূচি আগে থেকে তৈরি রয়েছে।

চরম অসৌজন্য। চূড়ান্ত অপমান। এমনই কাজ করে দেখাল কেন্দ্রীয় সরকারের সংস্থা রেল। ঠিক একদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শিয়ালদহ মেট্রো প্রকল্পের উদ্বোধনে আমন্ত্রণ জানানো হল। আর সে কথা ঘোষণা করল রেল। রবিবার পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী এই কথা জানিয়েছেন।

ঠিক কী ঘটেছে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে?‌ মেট্রো রেল সূত্রে জানা গিয়েছিল, সোমবার ইস্ট–ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পে সল্টলেকের সেক্টর ফাইভ থেকে শিয়ালদহ পর্যন্ত প্রকল্পের উদ্বোধন হবে। কিন্তু সেই উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ জানানো হবে না। এই কথা জানতে পেরে ক্ষোভ উগড়ে দেন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা–মন্ত্রীরা। বাংলার মানুষও ভাল চোখে দেখছেন না বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হয় নানা কথা। তখন চাপে পড়ে যায় মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

ঠিক কী বলেছেন কলকাতার মেয়র?‌ কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম ক্ষোভের সুরে বলেন, ‘বাংলার মানুষকে এভাবে বোকা বানানো যায় না। বাংলার মানুষ জানেন, এই মেট্রো প্রকল্প মমতাদির পরিকল্পনা। উনিই প্রকল্প অনুমোদন করেছিলেন। তখন মমতাদি রেলমন্ত্রী। আর মেট্রোর কাজে প্রতি পদক্ষেপে সহযোগিতা করেছে রাজ্য সরকার। জমি দেওয়া থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রেই রাজ্য সরকার সহযোগিতা করেছে। তার পরেও সৌজন্যবোধের এমন অভাব? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাওয়ার জন্য লালিত নয়। তবে কেন্দ্র যদি এভাবে অসহযোগিতা করে, তাহলে সহযোগিতা করা কি রাজ্যের পক্ষে সম্ভব?’

কী বলছেন জনসংযোগ আধিকারিক?‌ রবিবার পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী বলেন, ‘মেট্রোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম, কলকাতা উত্তরের সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, হাওড়ার সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়–সহ ওই এলাকার বিধায়ককেও আমন্ত্রণ পাঠানো হচ্ছে। নিয়ম মেনেই সবাইকে তাঁদের বাড়িতে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হবে।’ আর সকালেই দিলীপ ঘোষ সুর চড়িয়ে বলেন, ‘‌এটুকু যদি তোমাদের মান–মর্যাদা থাকে, কেন্দ্রের জিনিস নেবে না, তাহলে চড়বে না ওখানে, তাহলে বলবো বাপের বেটা।’‌ সোমবার দুপুরের বিমানে মুখ্যমন্ত্রী উত্তরবঙ্গ রওনা হতে পারেন। সেক্ষেত্রে এই অনুষ্ঠানে তিনি যাবেন না। সূচি আগে থেকে তৈরি রয়েছে। কিন্তু আগে জানালে তিনি সূচি পরিবর্তন করতে পারতেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কলকাতায় আসার পর এই আমন্ত্রণ কার্যত অপমানের সমান।

বন্ধ করুন