বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ভোররাতে দেড়ঘণ্টা ধরে সল্টলেকে তাণ্ডব ডাকাতদলের, পুলিশকে কামড়ে দিয়ে চম্পট
সল্টলকে এক প্রাক্তন অধ্যাপকের বাড়িতে ডাকাতির চেষ্টা। লোহার রড নিয়ে এসেছিল ডাকাতদল।

ভোররাতে দেড়ঘণ্টা ধরে সল্টলেকে তাণ্ডব ডাকাতদলের, পুলিশকে কামড়ে দিয়ে চম্পট

  • হাতের নাগালের মধ্যে পেয়েও কেন পুলিশ ডাকাতদলকে ধরতে পারল না তানিয়ে বড় প্রশ্ন উঠেছে।

সল্টলেকে এক অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপকের বাড়ির ভয়াবহ ডাকাতির চেষ্টা। ঘটনার খবর পেয়ে বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ এসে ডাকাতি আটকানোর চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিশের হাতে কামড়ে দিয়ে, রড দিয়ে মেরে চম্পট দেয় ডাকাত দল। গোটা ঘটনায় ফের সল্টলেকের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। সেই সঙ্গে পুলিশের ভূমিকা নিয়েও নানা কথা উঠেছ। হাতের নাগালের মধ্য়ে পেয়েও কেন পুলিশ ডাকাতদলকে ধরতে পারল না তানিয়ে বড় প্রশ্ন উঠেছে। 

 

স্থানীয় সূত্রে খবর, এএইচ ব্লকে কয়েকজন দুষ্কৃতী লোহার রড নিয়ে একাধিক বাড়ির ভেতর ঢোকার চেষ্টা করে। পাইপ বেয়ে ওপরে ওঠার চেষ্টা করে। এক অধ্যাপকের বাড়ির দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকে তারা।  ডাকাত ওই অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপকের ভাড়াটিয়ার ঘরেও তাণ্ডব চালায়। আলমারি খুলে তছনছ করে। এদিকে বাড়ির লোকজনের চিৎকারে এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পুলিশের কাছেও খবর যায়। পুলিশ ঘটনাস্থলেও চলে আসে। কিন্তু পুলিশের হাত ফসকে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। 

অঙ্কের প্রাক্তন অধ্য়াপক প্রণবেশ জানা বলেন, আমরা আতঙ্কিত। পুলিশ এসেছিল ঠিক কথাই। কিন্তু আগে পুলিশ বিভিন্ন ব্লকে পেট্রলিং করত। কিন্তু গত তিন বছর ধরে পুলিশ সেই কাজ করছে না। পাঁচজন ডাকাত এসেছিল। ল্যাপটপ ফেলে চলে গিয়েছে। মোবাইল নিয়ে চলে গিয়েছে। সামনের বাড়ি খবর দেওয়ার পরে পুলিশ এসেছিল। ডাকাতদলের দুজনকে ধরেও ফেলেছিল। কিন্তু পুলিশের হাত কামড়ে দিয়ে ডাকাতরা বেরিয়ে যায়। পুলিশ আগের মতো কর্তব্যপরায়ণ নয়।

 

সল্টলেকে এক প্রাক্তন অধ্যাপকের বাড়ির ভয়াবহ ডাকাতির চেষ্টা। ঘটনার খবর পেয়ে বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ এসে ডাকাতি আটকানোর চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিশের হাতে কামড়ে দিয়ে, রড দিয়ে মেরে চম্পট দেয় ডাকাত দল। গোটা ঘটনায় ফের সল্টলেকের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। সেই সঙ্গে পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছ। হাতের নাগালের মধ্য়ে পেয়েও কেন পুলিশ ডাকাতদলকে ধরতে পারল না তানিয়ে বড় প্রশ্ন উঠেছে। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, এইএইচ ব্লকে কয়েকজন দুষ্কৃতী লোহার রড নিয়ে বাড়ির ভেতর ঢুকে পড়ে। দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকে তারা। একাধিক বাড়িতে তারা ঢোকার চেষ্টা করে। পাইপ বেয়ে ওপরে ওঠার চেষ্টা করে ডাকাত ওই প্রাক্তন অধ্যাপকের ভাড়াটিয়ার ঘরেও তাণ্ডব চালায়। আলমারি খুলে তছনছ করে। এদিকে বাড়ির লোকজনের চিৎকারে এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পুলিশের কাছেও খবর যায়। পুলিশ ঘটনাস্থলেও চলে আসে। কিন্তু পুলিশের হাত ফসকে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। 

অঙ্কের প্রাক্তন অধ্য়াপক প্রণবেশ জানা বলেন, আমরা আতঙ্কিত। মাস ছয়েক ধরেই আমরা আতঙ্কিত। পুলিশ এসেছিল ঠিক কথাই। কিন্তু আগে পুলিশ বিভিন্ন ব্লকে পেট্রলিং করত। কিন্তু গত তিন বছর ধরে পুলিশ সেই কাজ করছে না। পাঁচজন ডাকাত এসেছিল। ল্যাপটপ ফেলে চলে গিয়েছে। মোবাইল নিয়ে চলে গিয়েছে। সামনের বাড়ি খবর দেওয়ার পরে পুলিশ এসেছিল। ডাকাতদলের দুজনকে ধরেও ফেলেছিল। কিন্তু পুলিশের হাত কামড়ে দিয়ে ডাকাতরা বেরিয়ে যায়। পুলিশ আগের মতো কর্তব্যপরায়ণ নয়।

|#+|

 

বন্ধ করুন