বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আবারও আত্মহত্যার চেষ্টা মেট্রোয়, প্রশ্নের মুখে নিরাপত্তা
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

আবারও আত্মহত্যার চেষ্টা মেট্রোয়, প্রশ্নের মুখে নিরাপত্তা

  • দেড় ঘণ্টা মেট্রো পরিষেবা ব্যাহত , কয়েকটি স্টেশনের মধ্যে অনিয়মিতভাবে ট্রেন চালানো হয়েছে

আবারও আত্মহত্যার চেষ্টা কলকাতা মেট্রোয়।প্রশ্নের মুখে পড়ল যাত্রী নিরাপত্তা।চালকের তৎপরতায় প্রাণ বাঁচল এক মহিলার।আহত অবস্থায় ওই মহিলাকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।শনিবার দুপুরে ১টা ৪২ মিনিট নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে রবীন্দ্র সদন স্টেশনের ডাউন লাইনে।আহত ওই মহিলার পরিচয় জানা যায়নি। কেন তিনি আত্মত্যার চেষ্টা করলেন, তা খতিয়ে দেখছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

এদিনের ঘটনার জেরে প্রায় দেড় ঘণ্টা মেট্রো পরিষেবা ব্যাহত হয়।তবে কয়েকটি স্টেশনের মধ্যে অনিয়মিতভাবে ট্রেন চালানো হয়েছে। গিরিশ পার্ক থেকে দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত মেট্রো চলছে। টালিগঞ্জ থেকে নিউ গড়িয়া পর্যন্ত মেট্রো পরিষেবা স্বাভাবিক রয়েছে।

তবে, এই ঘটনায় পুনরায় মেট্রোর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ কারণ, বছর দেড়েক আগে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, আত্মহত্যার মতো ঘটনা বন্ধ করতে সল্টলেক মেট্রোর মতো স্টেশনে কাচের দেওয়াল লাগানো হবে৷ ট্রেন এসে দাঁড়ালে, স্টেশনের সেই দরজা খুলবে৷ তারপর ২০২০ সালের শুরুতেই করোনার কারণে লকডাউন ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার৷ তারপরে দীর্ঘ সময় বন্ধ ছিল মেট্রো রেল পরিষেবা৷ এই সময়ের মাঝে কেন সেই পরিকল্পনা কার্যকর করল না—মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ? স্বাভাবিকভাবে সেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷

এর আগেও একাধিকবার কলকাতা মেট্রোয় আত্মহত্যার ঘটনায়, নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল৷ তবে প্রত্যাকবার মেট্রো কর্তৃপক্ষ তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে যাত্রীদের আশ্বস্ত করে৷ তার সত্ত্বেও প্রায়ই একটি করে আত্মহত্যা বা আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটেই চলেছে। স্বাভাবিকভাবেই মেট্রোর নিরাপত্তা নিয়ে ফের প্রশ্ন তুলেছেন নিত্যযাত্রীরা৷ এদিন দুপুরে কবি সুভাষগামী একটি রেক রবীন্দ্র সদন স্টেশনে ঢোকার মুখে আচমকাই এক মহিলা মেট্রোর সামনে ঝাঁপ দেন৷ তবে, চালক ওই মহিলাকে ঝাঁপ দিতে দেখে দ্রুত ব্রেক কষেন৷ তৎক্ষণাৎ রেকের গতি কমে যাওয়ায়, ট্রেনের সঙ্গে ওই মহিলার ধাক্কা লাগেনি৷ এক্ষেত্রে প্রাণে বাঁচলেও ঝাঁপ দেওয়ার ফলে সামান্য আঘাত পেয়েছেন ওই মহিলা৷

ওইভাবে আচমকা মেট্রো দাঁড়িয়ে পড়তে দেখে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন স্টেশনে উপস্থিত নিরাপত্তারক্ষীরা৷ তাঁরাই প্রথমে ওই মহিলার উদ্ধার কাজে হাত লাগান৷ পরে মেট্রোর অন্যান্য কর্মীরা ওই মহিলাকে উদ্ধার করেত এগিয়ে আসেন।এই ঘটনার জেরে বেশ কয়েক ঘণ্টা মেট্রোর নিয়মিত পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়৷ যদিও দমদম থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত একটি লাইন দিয়ে পরিষেবা চালু করে দেওয়া হয়৷ এর পর বেলা ২টো ১২মিনিট থেকে পরিষেবা পুনরায় স্বাভাবিক হতে শুরু করে৷ 

বন্ধ করুন