বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দিলীপকে বর্ণপরিচয় দিয়ে বাংলা শেখাতে গিয়ে নিজেই বানান ভুল করলেন বাবুল!
বাবুল সুপ্রিয়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
বাবুল সুপ্রিয়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

দিলীপকে বর্ণপরিচয় দিয়ে বাংলা শেখাতে গিয়ে নিজেই বানান ভুল করলেন বাবুল!

  • দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করা পোস্টে নিজেই বাংলা বানান ভুল করে নেটিজেনদের খোঁচার মুখে পড়লেন বাবুল সুপ্রিয়।

দলীয় সতীর্থ থাকাকালীন বাবুল সুপ্রিয়-দিলীপ ঘোষের 'মধুর সম্পর্কে'র বিষয়ে অবগত ছিল সবাই। এবার বাবুল দল বদল করায় সেই সম্পর্ক যে আরও 'মধুর' হবে, তা বলাই বাহুল্য। এই আবহে নিজের পুরোনো দলের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতির বাংলা নিয়ে কটাক্ষ করতে গিয়ে নিজেই বানান ভুল করে বসলেন বাবুল সুপ্রিয়। দিলীপ ঘোষকে বর্ণ পরিচয় উপহার দেবেন বলে কটাক্ষ করেছিলেন সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া আসানসোলের সাংসদ। তাঁর সেই পোস্টে নিজেই বাংলা বানান ভুল করে নেটিজেনদের খোঁচার মুখে পড়লেন বাবুল সুপ্রিয়।

উল্লেখ্য, এর আগে বিজেপির নয়া রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে অভিনন্দন জানিয়ে একটি পোস্ট করেন দিলীপ ঘোষ। লেখেন, 'ভারতীয় নতুন রাজ্যসভাপতি...।' দিলীপের সেই পোস্টের ভাষার ত্রুটি ধরে তোপ দাগেন বাবুল সু্প্রিয়। লেখেন, 'আমার বর্ণপরিচয়টা কিন্তু ওনার লাগবে। "ভারতীয় নতুন রাজ্য সভাপতি..." মানে কি??? আবার ভুল বাংলা!!' তবে বাবুলের এই পোস্টের প্রথম বাক্যে একটি বানান ভুল ছিল, যা নজর এড়ায়নি নেটিজেনদেরও।

দিলীপ ঘোষের ভুল ধরতে গিয়ে নিজেই ভুল করলেন বাবুল সুপ্রিয় 
দিলীপ ঘোষের ভুল ধরতে গিয়ে নিজেই ভুল করলেন বাবুল সুপ্রিয় 

রাজ্য সভাপতির পদে মেয়াদ ছিল ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত। কিন্তু তার আগেই তাঁকে অপসারণ করে সর্বভারতীয় স্তরে পদ দেওয়া হল। এরপরই দিলীপ টুইটারে লেখেন 'ভারতীয় নতুন রাজ্য সভাপতি...'। পরে অবশ্য তিনি এই পোস্ট সরিয়ে দেন টুইটার থেকে ৷ তবে সেই পোস্টের স্ক্রিনশট দিয়ে বাবুল টুইটারে কটাক্ষ করেন দিলীপকে। দাবি করেন, দিলীপ ভুল বাংলা লিখেছেন। তাঁর বর্ণপরিচয়টি এবার দিলীপের লাগবে।

বাবুল লেখেন, 'বিগত কয়েক বছরে বিজেপির জন্য এরজন (একজন) @দিলীপ ঘোষ অনেক খেটেছেন। তাই ওনার আগামী জীবন সুখের হোক এই কামনাই করি। কিন্তু on a lighter note এটা বলতেই হচ্ছে যে আমার বর্ণপরিচয়টা কিন্তু ওনার লাগবে। "ভারতীয় নতুন রাজ্য সভাপতি..." মানে কি??? আবার ভুল বাংলা!! যাইহোক ভালো থাকুন দিলীপদা।'

বন্ধ করুন