বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'দলে আসতে জোর করেছিলাম', মমতার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে 'খুশি' বাবুল
বাবুল সুপ্রিয় এবং ‌প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল
বাবুল সুপ্রিয় এবং ‌প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল

'দলে আসতে জোর করেছিলাম', মমতার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে 'খুশি' বাবুল

২০১৪ সালে রাজনীতিতে পা রাখেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। তখন থেকেই বিজেপি সাংসদের আইনি পরামর্শদাতা ছিলেন প্রিয়াঙ্কা।

‌প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালকে বিজেপি ভবানীপুরে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করার পর ফেসবুকে উচ্ছ্বসিত হয়ে পোস্ট করলেন সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। প্রিয়াঙ্কার মতো 'লড়াকু' নেত্রী লড়াইয়ের ময়দানে যেভাবে নামছেন, তাতে তাঁকে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।

এদিন প্রিয়াঙ্কার প্রসঙ্গ টেনে বিজেপি সাংসদ লেখেন, ‘‌অভিনন্দন প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। প্রিয়াঙ্কা একজন লড়াকু নেত্রী, যিনি ২০১৪ সাল থেকে আমার জন্য আইনি লড়াই লড়েছেন অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে। নির্দিষ্ট কারণে একটা সময়ে তাঁকে দলে যোগ দেওয়ার জন্য জোর করেছিলাম। আজ তাঁর জন্য আমরা অত্যন্ত খুশি। জীবনে সবসময় জয়-পরাজয়টা বড় নয়। আসল বিষয় হল যুদ্ধ করা। তরুণ প্রতিভাদের সময় দলে নিয়ে এসেছি ও তাঁদের সমর্থন করেছি। প্রিয়াঙ্কার জন্য আমার শুভেচ্ছা রইল। আমি বিশ্বাস করি, তাঁরা দলকে আগামিদিনে গর্বিত করবেন।’‌ উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে রাজনীতিতে পা রাখেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। তখন থেকেই বিজেপি সাংসদের আইনি পরামর্শদাতা ছিলেন প্রিয়াঙ্কা।

এর আগেও বিধানসভা ভোটে কলকাতার এন্টালি কেন্দ্র থেকে লড়াই করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু হেরে গিয়েছিলেন। তবে এবারে তাঁর সামনে আরও শক্ত প্রতিপক্ষ। সেই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ময়দানে নামার আগে প্রিয়াঙ্কাকে বিশেষ বার্তা দিয়ে গেলেন বাবুল। এবারে যখন প্রিয়াঙ্কা লড়াইয়ের ময়দানে নামছেন, তখন রাজনীতি ছাড়ার কথা ঘোষণা করে দিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। সক্রিয় রাজনীতিতে তাঁকে আর দেখা যাবে না বলেও জানিয়ে দেন তিনি। তবে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের অনুরোধে সাংসদ পদ থেকে অবশ্য ইস্তফা দেননি।

বন্ধ করুন