বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Rampurhat Killings: ‘টাকা-চাকরি দিয়ে দেহ কেনার চেষ্টা হয়েছিল’, বগটুইকাণ্ডে CBI তদন্তে খুশি BJP
গতকাল রামপুরহাটের বগটুই গ্রামে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ছবি - পিটিআই) (PTI)

Rampurhat Killings: ‘টাকা-চাকরি দিয়ে দেহ কেনার চেষ্টা হয়েছিল’, বগটুইকাণ্ডে CBI তদন্তে খুশি BJP

  • কলকাতা হাই কোর্টের এই নির্দেশকে সরকারের গালে চড় হিসেবে আখ্যা দেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি সুকান্ত মজুমদার।

আজই কলকাতা হাই কোর্ট নির্দেশ দেয় দেয় যে বগটুই গণহত্যাকাণ্ডে তদন্তভার সিবিআইকেই দেওয়া হোক। আর এর পরিপ্রেক্ষিতে খুশি রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি। এদিন আদালতের নির্দেশের পর বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘আমরা কলকাতা হাই কোর্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাচ্ছি।’ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দেগে সুকান্ত এদিন বলেন, ‘টাকা ও চাকরি দিয়ে মৃতদেহগুলিকে কিনে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল, ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা হয়েছিল।’ তাঁর মতে, এই নির্দেশ রাজ্য সরকারের গালে সপাটে আঘাত।

এদিকে আদালতের এই নির্দেশ প্রসঙ্গে রাজ্য বিধানসভায় বামেদের প্রাক্তন পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘সিট এই ঘটনার সত্যতাকে ধাপাচাপা দেওয়ার একটা চেষ্টা করছে। গতকালও সেই বন্দোবস্ত হয়েছে। এই অভিযোগ আমরা আগেও করেছি। আদালতের নির্দেশে সেটাই এবার পরিষ্কার হয়ে গেল।’ এরপর সিবিআইকেও তোপ দেগে সুজনবাবু বলেন, ‘মমতার সিট আর অমিত শাহের সিবিআই-এর মধ্যে কোনও তফাৎ নেই।’

উল্লেখ্য, এদিন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে বগটুইকাণ্ডের তদন্তভার তুলে দেওয়ার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ। ডিভিশন বেঞ্চের তরফে এদিন বলা হয়, ‘আমরা এই ঘটনার বিস্তারিত পর্যবেক্ষণ করেছি। মামলার পরিস্থিতি বিবেচনা করে আদালত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, এই মামলা সিবিআই–কে দেওয়া প্রয়োজন। বিচার ব্যবস্থা এবং সমাজের প্রতি ন্যায়বিচারের জন্য স্বচ্ছ তদন্ত করে সত্য সামনে নিয়ে আসা জরুরি। রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে যাতে দ্রুত মামলাটি সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়।’

বন্ধ করুন