বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্টুডেন্ট ভিসা দিয়ে ভারতে এসে জাল আধার তৈরি, পাসপোর্টের সময় পাকড়াও বাংলাদেশি
যজাল শংসাপত্রে পাসপোর্ট তৈরি করতে গিয়ে ধৃত বাংলাদেশি। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
যজাল শংসাপত্রে পাসপোর্ট তৈরি করতে গিয়ে ধৃত বাংলাদেশি। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

স্টুডেন্ট ভিসা দিয়ে ভারতে এসে জাল আধার তৈরি, পাসপোর্টের সময় পাকড়াও বাংলাদেশি

জাল স্কুল শংসাপত্র তৈরি করিয়ে একে একে ভোটার, আধার, প্যান সবই তৈরি হয়ে গিয়েছিল।

‘‌স্টুডেন্ট ভিসা’‌ নিয়ে এদেশে প্রবেশ। জাল স্কুল শংসাপত্র তৈরি করিয়ে একে একে ভোটার, আধার, প্যান সবই তৈরি হয়ে গিয়েছিল। কাল হল পাসপোর্টের আবেদন করত গিয়ে। পুলিশি ভেরিফিকেশনে কেঁচো খুঁড়তে কেউটে বেরিয়ে এল। অবৈধভাবে এদেশে বসবাস করার অভিযোগে রাজারহাটের রাইগাছি এলাকার একটি আবাসন থেকে বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করল পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতের নাম গোবিন্দ সাহা (‌২৬)‌। বাংলাদেশরে চাঁদপুরের বাসিন্দা গোবিন্দ। জাল শংসাপত্র তৈরি করে পাসপোর্টের আবেদন করেছিল অভিযুক্ত। কীভাবে তিনি ওই জাল শংসাপত্র জোগাড় করলেন, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, ২০১২ সালে ‘‌স্টুডেন্ট ভিসা’‌ নিয়ে এদেশে প্রবেশ করেছিল সে। পড়াশোনা করার জন্য এদেশে এসেছিলেন বলে পুলিশি জেরায় জানিয়েছে অভিযুক্ত। ওদিকে ভিসার মেয়াদও শেষ হয়ে গিয়েছিল। অভিযোগ, একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভরতি হওয়ার জন্য গোবিন্দ এক দালালের কাছ থেকে ৯৫ হাজার টাকা দিয়ে জাল স্কুল শংসাপত্র তৈরি করায়। সেই জাল শংসাপত্র জমা দিয়ে ওই কলেজেও ভরতি হয় সে।

শুধু তাই নয়, পুলিশি জেরায় ওই অভিযুক্ত জানিয়েছে, ওই জাল স্কুল শংসাপত্র দিয়ে এ দেশের ভোটার, আধার ও প্যান কার্ডও তৈরি করায় গোবিন্দ। ওই নথিপত্র দিয়েই পাসপোর্টের জন্য আবেদন করে ওই যুবক। তথ্য যাচাইয়ের জন্য তার ফ্ল্যাটে ভেরিফিকেশন করতে যায় পুলিশ। তখনই সন্দেহ হয় পুলিশের। এরপর তার দেওয়া নথি খতিয়ে দেখতে গিয়ে জালিয়াতি ধরা পড়ে যায়। পুলিশ জানতে পারে তার দেওয়া নথি জাল। এর পরেই বিষয়টি রাজারহাট থানায় জানানো হয়। তার পরেই ওই ফ্ল্যাটে হানা দিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বন্ধ করুন