বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কেনা ছিল কবরের জমি, দেওয়া ছিল কফিনের টাকা, দম্পতির আত্মহত্যায় অবাক পুলিশও
নিহত হৃষিকেশ ও রিয়া।

কেনা ছিল কবরের জমি, দেওয়া ছিল কফিনের টাকা, দম্পতির আত্মহত্যায় অবাক পুলিশও

  • গোয়েন্দারা জানাচ্ছেন, বেশ কয়েক মাস ধরে আত্মহত্যার পরিকল্পনা করছিলেন দম্পতি। সেকথা জানিয়েছেন তাঁদের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুও। হৃষিকেশদের ফ্ল্যাট থেকে রিয়া ও হৃষিকেশের ২টি আলাদা উইল উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত ৩১ মার্চ করা ২টি উইলেই তাতে তাদের দেহ বন্ধু তাপস দাসের হাতে তুলে দেওয়ার আবেদন রয়েছে।

দিনের পর দিন পরিকল্পনা করে সব গুছিয়ে রেখে আত্মঘাতী হয়েছেন বাঁশদ্রোণীর দম্পতি। বাঁশদ্রোণীর ব্রহ্মপুরে আত্মঘাতী হৃষিকেশ পাল ও রিয়া সরকারের মৃত্যুর তদন্তে নেমে এমনটাই জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা। উইল করে, দেহ সমাধিস্থ করার জন্য জমি ও কফিন পর্যন্ত কিনে রেখে গিয়েছেন তাঁরা। যা দেখে অবাক আধিকারিকরাও।

গোয়েন্দারা জানাচ্ছেন, আত্মঘাতী হওয়ার আগে ইমেল ও এসএমএস শিডিউল করে রেখেছিলেন হৃষিকেশ ও রিয়া। এই পদ্ধতিতে কোনও ইমেল বা এসএমএস লিখে রাখলে আগে থেকে উল্লেখ করা নির্দিষ্ট সময় সেটি প্রাপকের কাছে পৌঁছয়। গোয়েন্দাদের অনুমান সম্ভবত সোমবার রাতেই আত্মঘাতী হয়েছেন দম্পতি। তার আগে ইমেল ও এসএমএস শিডিউল করে রেখেছিলেন তাঁরা।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ৮.৩০ মিনিটের মধ্যে সেই ইমেল ও এসএমএসগুলি পৌঁছয় থানা, বন্ধু ও আত্মীয়দের কাছে। বাঁশদ্রোণী থানা থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার সকাল ৮.০৫ মিনিটে হৃষিকেশের পাঠানো ইমেল পায় তারা। ৮.২০ মিনিটে ইমেলে উল্লেখ করা ঠিকানায় পৌঁছে যান আধিকারিকরা। ঘরের দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে দেখেন। পাশাপাশি চাদরে ঢাকা ২ জনের দেহ। পাশে পড়ে ঘুমের ওষুধের পাতা। পুলিশ বা বন্ধুরা পৌঁছতে দেরি করলে দেহে পচন ধরতে পারে। সেজন্য এসি চালিয়ে ঘর প্রচণ্ড ঠান্ডা করে রেখেছিলেন তাঁরা। পুলিশ আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, ঘুমের ওষুধে ১৫ মিনিটের মধ্যে মৃত্যু অসম্ভব।

গোয়েন্দারা জানাচ্ছেন, বেশ কয়েক মাস ধরে আত্মহত্যার পরিকল্পনা করছিলেন দম্পতি। সেকথা জানিয়েছেন তাঁদের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুও। হৃষিকেশদের ফ্ল্যাট থেকে রিয়া ও হৃষিকেশের ২টি আলাদা উইল উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত ৩১ মার্চ করা ২টি উইলেই তাতে তাদের দেহ বন্ধু তাপস দাসের হাতে তুলে দেওয়ার আবেদন রয়েছে। সঙ্গে মল্লিকবাজার কবরস্থানে তাঁদের দেহ সমাহিত করার জন্য জমি কেনা রয়েছে বলে উল্লেখ রয়েছে সেখানে। রয়েছে জমি চিহ্নিত করার বিস্তারিত বিবরণ। এমনকী কফিন কেনার জন্যও টাকা দিয়ে রেখেছিলেন তাঁরা। উইলে খ্রিষ্ট রীতিতে তাঁদের সমাহিত করার আবেদন রয়েছে। মল্লিকবাজার কবরস্থানে একটি দেহ সমাহিত করার জমির দাম প্রায় ৪০,০০০ টাকা।

বন্ধুরা জানিয়েছেন, হৃষিকেশরা যে এত কিছু করেছেন তা জানা ছিল না তাঁদের। তবে রিয়া মাঝে মাঝেই আত্মঘাতী হবেন বলে জানাতেন। তাঁকে বারবার বোঝাতেন বন্ধুরা।

মনোবিদরা মনে করছেন, আর্থিক সমস্যার সঙ্গে লড়তে লড়তে হতাশ হয়ে পড়েছিলেন দম্পতি।

 

 

বন্ধ করুন