বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীকে ‘পিসি’ বলে ডেকে চরম কটাক্ষ বিজেপি নেতার, ছাড়লেন না ‘ভাইপো’-কেও
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

মুখ্যমন্ত্রীকে ‘পিসি’ বলে ডেকে চরম কটাক্ষ বিজেপি নেতার, ছাড়লেন না ‘ভাইপো’-কেও

  • এদিন মমতার এই প্রস্তাব সম্পর্কে বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য লেখেন, ‘চাপের মুখে কিসান সম্মান নিধি চালু করতে রাজি বলে কেন্দ্রকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পশ্চিমবঙ্গে শর্তসাপেক্ষে কিসান সম্মান নিধি প্রকল্প চালু করতে সম্মতি দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কেন্দ্রকে চিঠির খবর প্রকাশ্যে আসার পরদিনই বিজেপির হামলার মুখে পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী। টুইটারে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকে লক্ষ্য করে আক্রমণ শানালেন বিজেপির দিল্লির নেতা। সঙ্গে চরম কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন মমতার ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যয়কেও। যাতে এক প্রকার স্পষ্ট, মমতার প্রস্তাব মানছে না কেন্দ্রীয় সরকার। 

মঙ্গলবার জানা যায়, ২ কেন্দ্রীয় প্রকল্প আয়ুষ্মান ভারত ও কিসান সম্মান নিধি চালু করতে কেন্দ্রীয় সরকারকে শর্ত উল্লেখ করে চিঠি লিখেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে দাবি করা হয়েছে, প্রকল্পের টাকা সরাসরি উপভোক্তাদের হাতে তুলে দিতে পারবে না কেন্দ্রীয় সরকার। টাকা দিতে হবে রাজ্য সরকারের হাতে। সেই টাকা বিলি করবে রাজ্য। 

এদিন মমতার এই প্রস্তাব সম্পর্কে বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য লেখেন, ‘চাপের মুখে কিসান সম্মান নিধি চালু করতে রাজি বলে কেন্দ্রকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে শর্ত দিয়েছেন, টাকা দিতে হবে রাজ্য সরকারের মাধ্যমে।’

এর পরই মুখ্যমন্ত্রীকে চরম কটাক্ষ করেন মালব্য। লেখেন, ‘পিসি, ডিরেক্ট ব্যাঙ্ক ট্রান্সফার ব্যাপারটা শুনেছেন? এতে ভাইপো নেই, কাটমানি নেই। টাকা সরাসরি কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে যাবে। তৃণমূল কর্মীদের অ্যাকাউন্টে যাবে না।’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রস্তাব পত্রপাঠ খারিজ করে দিয়েছে রাজ্য বিজেপির অন্যতম নেতা রাহুল সিনহা। তিনি বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় আমপানের পরদিনই প্রধানমন্ত্রী ১,০০০ কোটি টাকা ত্রাণ ঘোষণা করে গিয়েছিলেন। সেই ত্রাণের কী পরিণতি হয়েছে আমরা সবাই জানি। তৃণমূলের বড়, মেজো, সেজো, ছোট নেতার বাড়ির একাধিক সদস্যের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকেছে। আর বঞ্চিত হয়েছেন প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা। বিরোধীদের চাপে পরে মুখ্যমন্ত্রী দুর্নীতির কথা স্বীকার করলেও কারও বিরুদ্ধে একটা FIR হয়নি। এই সরকারের হাতে কেউ টাকা দেয় কখনও?’

 

বন্ধ করুন