বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > খাস কলকাতায় লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের প্রচারে বিজেপি, লিফলেট বিলি নেত্রীর
প্রচার করতে দেখা গেল খোদ বিজেপি নেত্রী সুনীতা ঝাওয়ার–কে। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
প্রচার করতে দেখা গেল খোদ বিজেপি নেত্রী সুনীতা ঝাওয়ার–কে। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

খাস কলকাতায় লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের প্রচারে বিজেপি, লিফলেট বিলি নেত্রীর

  • আর তার প্রচার করতে দেখা গেল খোদ বিজেপি নেত্রী সুনীতা ঝাওয়ার–কে। হাতে লিফলেট নিয়ে বিলি করছেন তিনি।

একুশের নির্বাচনের আগে থেকেই শুরু হয়েছে দুয়ারে সরকার প্রকল্প। তা নিয়ে বিজেপি কম কটাক্ষ করেনি। এবার বিপুল জনসমর্থন নিয়ে সরকার গড়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। এবারের দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে নয়া সংযোজন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার এবং স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড। আর তার প্রচার করতে দেখা গেল খোদ বিজেপি নেত্রী সুনীতা ঝাওয়ার–কে। হাতে লিফলেট নিয়ে বিলি করছেন তিনি। অনেকেই ভাবতে শুরু করেছিলেন তিনি বোধহয় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।

কিন্তু ঘোর কাটল লিফলেটের দু’‌ধারে পদ্মের ছবি দেখে। অর্থাৎ তিনি বিজেপিতেই আছেন। অথচ রাজ্য সরকারের প্রকল্পের প্রচার করছেন। গৃহলক্ষ্মীদের আর্থিক সহায়তা দিতে রাজ্য সরকারের প্রকল্প ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার’। যা স্বয়ং তৃণমূলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্কপ্রসূত। কিন্তু এক বিজেপি নেত্রীর পক্ষ থেকে হিন্দিতে ছাপানো সেই প্রকল্পের লিফলেটের দু’পাশে ছবি পদ্মের! যা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। এটা করার কারণ কী?‌ উঠেছে প্রশ্ন।

আর এই ঘটনা ঘটেছে খাস কলকাতায়। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের ভূয়সী প্রশংসা করে তাতে মহিলাদের যোগ দিতে বলে প্রচারপত্র বিলি করা হচ্ছে। কলকাতার ৪২ নম্বর ওয়ার্ডের কো–অর্ডিনেটর তথা বিজেপি নেত্রী সুনীতা ঝাওয়ার। তিনি লিফলেট দিয়ে প্রচার করছেন। কেন এই উদ্যোগ?‌ সুনীতা বলেন, ‘আমার এলাকায় (বড়বাজার) বেশিরভাগ মানুষ হিন্দিভাষী। আমি ওয়ার্ড কো–অর্ডিনেটর হিসেবে মানুষকে জানাতেই লিফলেট ছাপিয়ে প্রচার করেছি। নিজের ওয়ার্ডে প্রায় ২০০ প্রচারপত্র বিলি করেছি।’

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক কুণাল ঘোষ বলেন, ‘আয়ুষ্মান ভারতের সুবিধা সকলে পায় না। স্বাস্থ্যসাথী সকলে পায়। বিজেপি জনপ্রতিনিধিরা দেখছেন, রাজ্যের প্রকল্পগুলি ভাল, মানুষ নিচ্ছেন। সুতরাং তাঁরা তার বাইরে থাকবেন কী করে? তাই হাত লাগাচ্ছেন।’ এই ঘটনা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

বন্ধ করুন