বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা হাসপাতালে মোবাইল ফোনে নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে দায়ের হল জনস্বার্থ মামলা
কলকাতা হাইকোর্ট। ফাইল ছবি
কলকাতা হাইকোর্ট। ফাইল ছবি

করোনা হাসপাতালে মোবাইল ফোনে নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে দায়ের হল জনস্বার্থ মামলা

  • নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, হাসপাতালের ওয়ার্ডের ভিতরে চিকিৎস, নার্স, রোগী কেউই মোবাইল ফোন নিয়ে ঢুকতে পারবেন না। বদলে ব্যবহার করতে হবে ল্যান্ডলাই।

পশ্চিমবঙ্গের করোনা হাসপাতালে মোবাইল ফোন নিয়ে ঢোকার ওপর জারি নিষেধাজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে দায়ের হল জনস্বার্থ মামালা। শুক্রবার মামলাটি দায়ের করেছেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। গত বুধবার পশ্চিমবঙ্গের করোনা হাসপাতালে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করে নির্দেশিকা জারি করেছিলেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। আবেদনে সরকারের ওই নির্দেশিকার অভিষন্ধি নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে মামলাটির শুনানি হতে পারে বলে কলকাতা হাইকোর্ট সূত্রের খবর।

করোনা হাসপাতালে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করা নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে শাসক ও বিরোধীর তুমুল তরজা চলছে। চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে করোনা হাসপাতালের একাধিক ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। তার কোনওটাতে বাঙুর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডের ভিতরে রোগীদের পাশে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়, কোনওটায় আবার দেখা যায় আরজি করের আইসোলেশনে দৌড়ে বেড়াচ্ছে বিড়াল। এমনকী হাওড়ার সত্যবালা আইডি হাসপাতাল থেকে মৃতদেহ গায়েব করে দেওয়ার অভিযোগও ওঠে একটি ভিডিয়োয়। এর পরই সংক্রমণ ছাড়াতে পারে এই আশঙ্কায় হাসপাতালে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করে নির্দেশিকা জারি করে সরকার।

নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, হাসপাতালের ওয়ার্ডের ভিতরে চিকিৎস, নার্স, রোগী কেউই মোবাইল ফোন নিয়ে ঢুকতে পারবেন না। বদলে ব্যবহার করতে হবে ল্যান্ডলাই। বৃহস্পতিবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যসচিব বলেন, ‘জুতোর থেকে মোবাইল ফোন থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা বেশি।’

বিরোধীদের দাবি, করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর কারসাজি ধরা পড়ে যাচ্ছে দেখে হাসপাতালে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করেছে রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রী রাস্তায় নেমে করোনা মোকাবিলায় যে তৎপরতা দেখাচ্ছেন, করোনা হাসপাতালগুলোর অবস্থা যে তার থেকেও খারাপ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তা বাইরে ছড়িয়ে পড়ছে। এবার সরাসরি রাজ্যের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে গেলেন অর্জুন সিং।



বন্ধ করুন