বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌অত্যন্ত সময়োচিত পদক্ষেপ’, দিলীপ ঘোষের অপসারণে তির্যক মন্তব্য করলেন তথাগত
তথাগত রায়। ফাইল ছবি
তথাগত রায়। ফাইল ছবি

‘‌অত্যন্ত সময়োচিত পদক্ষেপ’, দিলীপ ঘোষের অপসারণে তির্যক মন্তব্য করলেন তথাগত

  • একুশের নির্বাচনে পরাজয়ের পর থেকেই একের পর এক টুইট করেছিলেন তথাগত রায়। তা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়েছিল।

দিলীপ ঘোষ বিজেপির রাজ্য সভাপতি থাকাকালীন তাঁকে বারবার কাঠগড়ায় তুলেছিলেন প্রাক্তন মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায়। এবার রাজ্য সভাপতির পদ খোয়ানোর পর খোঁচা দিয়ে মন্তব্য করলেন বিজেপির বর্ষীয়ান নেতা। ছোট্ট তিনটি শব্দে তথাগত বলেন, ‘‌অত্যন্ত সময়োচিত পদক্ষেপ’‌। অর্থাৎ সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ করেছে দল এটাই তিনি বুঝিয়েছেন। তারপরই তিনি বলেন, ‘‌অনেকদিন আগেকার এক রাজ্য সভাপতির পক্ষ থেকে নব মনোনীত রাজ্য সভাপতিকে অভিনন্দন।’‌

একুশের নির্বাচনে পরাজয়ের পর থেকেই একের পর এক টুইট করেছিলেন তথাগত রায়। তা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়েছিল। এবার আবার সময়োচিত পদক্ষেপ বলায় দলের অন্দরে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। একাধিক নেতা–কর্মীর সঙ্গে দিলীপ ঘোষের মতপার্থক্যও প্রকাশ্যে এসেছিল। এমনকী ভোট পরবর্তী হিংসায় কর্মীদের পাশে কেন নেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন তথাগত রায়।

এদিন তথাগত রায় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‌সাংগঠনিক পদে বদল নিয়ে যা বলার বলেছি। বাকিটা ক্রমশ প্রকাশ্য।’‌ অর্থাৎ তিনি আরও কিছু বলবেন। তবে সেটা পরে। দিলীপ ঘোষকে রাজ্য সভাপতি থেকে সরিয়ে দেওয়া হলেও সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি করা হয়েছে। মুকুল রায়ের ছেড়ে যাওয়া জায়গায় বসানো হয়েছে দিলীপ ঘোষকে। তাই টুইট করে শুভেন্দু অধিকারী লেখেন, ‘‌সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি পদের দায়িত্ব পাওয়ার জন্য দিলীপ ঘোষকে অভিনন্দন। রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। দুজনকেই আমার শুভেচ্ছা। আশাকরি দলের শক্তিবৃদ্ধির জন্য দুজনেই তাঁদের সেরাটা দেবেন।’‌

এদিন তথাগত রায় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‌সাংগঠনিক পদে বদল নিয়ে যা বলার বলেছি। বাকিটা ক্রমশ প্রকাশ্য।’‌ অর্থাৎ তিনি আরও কিছু বলবেন। তবে সেটা পরে। দিলীপ ঘোষকে রাজ্য সভাপতি থেকে সরিয়ে দেওয়া হলেও সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি করা হয়েছে। মুকুল রায়ের ছেড়ে যাওয়া জায়গায় বসানো হয়েছে দিলীপ ঘোষকে। তাই টুইট করে শুভেন্দু অধিকারী লেখেন, ‘‌সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি পদের দায়িত্ব পাওয়ার জন্য দিলীপ ঘোষকে অভিনন্দন। রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। দুজনকেই আমার শুভেচ্ছা। আশাকরি দলের শক্তিবৃদ্ধির জন্য দুজনেই তাঁদের সেরাটা দেবেন।’‌|#+|

উল্লেখ্য, একুশের নির্বাচনের সময় শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন, নির্বাচনের পর আমি আর দিলীপ ঘোষ সব দেখে নেব। সেটা আর হল না বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। আর দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‌রাজ্যে পার্টি এগিয়ে চলেছে। পশ্চিমবঙ্গে আমরা এখন মুখ্য বিরোধী দলের ভূমিকায় রয়েছি। সেই জন্য সমস্ত জায়গায় নতুন মুখ আনা প্রয়োজন। নাড্ডাজিকে আমি বলেছিলাম, নতুনদের তুলে আনা হোক।’‌

বন্ধ করুন