বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌এই মতবিরোধ তো চিন্তার বিষয়ই’‌, কৃষ্ণ গমনে কপালে ভাঁজ সুকান্ত মজুমদারের
সুকান্ত মজুমদার। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার @DrSukantaMajum1)
সুকান্ত মজুমদার। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার @DrSukantaMajum1)

‘‌এই মতবিরোধ তো চিন্তার বিষয়ই’‌, কৃষ্ণ গমনে কপালে ভাঁজ সুকান্ত মজুমদারের

  • মুকুল রায়–সহ চার বিধায়ক আগেই সংস্রব ত্যাগ করেছেন বিজেপির সঙ্গে। তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। শুক্রবার বিজেপি ছাড়লেন রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী৷

বিজেপির এখন বিধায়ক সংখ্যা কত?‌ এই প্রশ্ন ঘরে–বাইরে উঠতে শুরু করেছে। আর তাতেই বেজায় অস্বস্তিতে পড়েছেন বিজেপির নতুন রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। কারণ মুখে যাই বলুন সংখ্যাটা এখন ৭০–এ নেমে গিয়েছে। মুকুল রায়–সহ চার বিধায়ক আগেই সংস্রব ত্যাগ করেছেন বিজেপির সঙ্গে। তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। শুক্রবার বিজেপি ছাড়লেন রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী৷ সম্প্রতি নয়াদিল্লির বৈঠকে অমিত শাহ বার্তা দেন সুকান্তকে আর যেন দল না ভাঙে সেদিকে খেয়াল রাখতে। তারপরও ভাঙন অব্যাহত। আর দলের অন্দরের সংঘাতই চিন্তার কারণ বলে জানিয়েছেন সুকান্ত।

ঠিক কী বলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি?‌ শুক্রবার এই ভাঙন নিয়ে সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘‌রায়গঞ্জে আমাদের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী। আর দল ছেড়েছেন ওই এলাকার বিধায়ক। বিধায়ক আর সাংসদের মধ্যে এই মতবিরোধ তো চিন্তার বিষয়ই।’‌ আরও চিন্তা বাড়বে যদি কৃষ্ণ কল্যাণী তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। কারণ তাহলে তৃণমূলের বিধায়ক সংখ্যা বাড়বে। শুধু তাই নয়, উত্তরের জেলা রায়গঞ্জে সংগঠন মজবুত হয়ে যাবে। যা কপালে ভাঁজ ফেলবে বিজেপির।

রায়গঞ্জের বিধায়ককে শোকজ করার পরই তিনি দল ছেড়েছেন। বিধায়ক পদ থেকে কৃষ্ণ কল্যাণীর ইস্তফা দাবি করেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তবে কৃষ্ণ কল্যাণী এবার তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেবেন কি না তা অবশ্য খোলসা করেননি। তাই সুকান্ত মজুমদারের চিন্তা রযেছে এটা নিয়েও। যদিও তিনি সেটা নিজে মুখ স্বীকার করেননি।

কিছুদিন আগে কলকাতায় এসেছিলেন রায়গঞ্জের বেসুরো বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী। এখানে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে তাঁর গোপন বোঝাপড়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর। তারপরই রায়গঞ্জে ফিরে বিজেপি ছাড়লেন তিনি। দলের অন্দরে যদি এভাবে মতবিরোধ দেখা দেয় আর তার জেরে বিধাযক–সাংসদ দল ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে চলে যান তাহলে তা অবশ্যই চিন্তার বিষয়। সেটাই ব্যক্ত করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তাই সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘‌আমরা বিধায়কদের সঙ্গে কথা বলছি। ব্যক্তিগত স্বার্থের থেকে দলীয় স্বার্থ আমাদের কাছে অনেক বড়। তাই সকলকেই অনুরোধ করছি, দলীয় স্বার্থের কথা ভেবে আসুন একসঙ্গে কাজ করি।’‌

বন্ধ করুন