বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মুরলীধরের বদলে নতুন কার্যালয় খুঁজছে BJP, শ্যামপ্রসাদও পা দিয়েছিলেন এই অফিসে
রাজ্য বিজেপির কার্যালয়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

মুরলীধরের বদলে নতুন কার্যালয় খুঁজছে BJP, শ্যামপ্রসাদও পা দিয়েছিলেন এই অফিসে

  • রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে তৃণমূলও ঝাঁ চকচকে অফিস করার দিকে এগোচ্ছে। এবার সেই পথে হাঁটা শুরু করল গেরুয়া শিবিরও। তবে এখনও ঠিক কোথায় অফিস সরানো হবে তা চূড়ান্ত হয়নি।

দীর্ঘদিন ধরেই উত্তর কলকাতার মুরলীধর সেন লেনের অফিসটিকেই বিজেপির রাজ্য কার্যালয় হিসাবে গণ্য করা হয়। এবার সেই রাজ্য দফতরের ঠিকানা বদল করতে চাইছে বিজেপি। এমন আলোচনা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে দলের অন্দরে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও এনিয়ে সবুজ সংকেত দিয়েছে বলে খবর দল সূত্রে। তবে ঠিক কোথায় হবে দলের নতুন রাজ্য দফতর এনিয়ে এখনও চূড়ান্ত কিছু হয়নি। এনিয়ে খোঁজাখুজি শুরু হয়েছে।

এদিকে বিজেপি সূত্রে খবর,  গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলের কাজকর্ম পরিচালনা করার জন্য হেস্টিংসে অফিস নিয়েছিল বিজেপি। সেখান থেকেও দলের কাজকর্ম চালানো হত। কিন্তু নির্বাচনে ভরাডুবির পর থেকেই সেই অফিস বেশিরভাগ সময়ই ফাঁকা থাকে। সেই ভাড়াবাড়ির অনেকগুলি তলাও খালি করে দেওয়া হয়েছে। আপাতত ঠিক হয়েছে মুরলীধর সেনের যে অফিসটি রয়েছে সেটি উত্তর কলকাতার কার্যালয় হয়ে যাবে।

তবে মুরলীধর সেনের এই অফিসকে ঘিরে আদি বিজেপি নেতৃত্বের মধ্যে একটি অন্য আবেগ রয়েছে। এমনকী খোদ শ্য়ামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ও এই বাড়িতে আসতেন। সেই বাড়ি একেবারে ছেড়ে দেওয়ার পক্ষে দলের অনেকেই মত দেননি। তবে অন্য আধুনিক কার্যালয় তৈরির বিষয়টিও একেবারে ফেলে দেওয়ার নয়।

দলের একাংশের মতে মুরলীধর সেনের অফিস থেকেই দল শক্তি ভিতের উপর দাঁড়িয়েছে বাংলায়। সেক্ষেত্রে এই কার্যালয়কে রেখে দেওয়াটা জরুরী। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে তৃণমূলও ঝাঁ চকচকে অফিস করার দিকে এগোচ্ছে। এবার সেই পথে হাঁটা শুরু করল গেরুয়া শিবিরও।

বন্ধ করুন