বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ধর্মতলায় মুখেমুখি CAA-র সমর্থক ও বিরোধীরা, উত্তেজনা রুখল পুলিশ
রবিবার ধর্মতলায় বিক্ষোভকারীদের রুখছে কলকাতা পুলিশ। (AFP)
রবিবার ধর্মতলায় বিক্ষোভকারীদের রুখছে কলকাতা পুলিশ। (AFP)

ধর্মতলায় মুখেমুখি CAA-র সমর্থক ও বিরোধীরা, উত্তেজনা রুখল পুলিশ

  • বাম ছাত্র-যুবকের অভিযোগ, ভুবনেশ্বরে অমিত শাহের সঙ্গে সেটিং করে এসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কলকাতা সফরের বিরোধিতায় বাম ও কংগ্রেসের বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল ধর্মতলায়। রবিবার ধর্মতলার গ্রান্ড হোটেলের সামনে মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন বিক্ষোভকারী ও বিজেপি কর্মীরা। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, পুলিশ তাদের ওপর লাঠি চালিয়েছে।

এদিন গ্রান্ড হোটেলের সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন বাম ও কংগ্রেসের ছাত্র-যুবরা। অমিত শাহের সভায় যোগ দিতে তখন সেখান থেকে যাচ্ছিল বিজেপি কর্মীদের একটি মিছিল। স্লোগান ও পালটা স্লোগানে কিছুক্ষণের মধ্যে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। ময়দানে নামে পুলিশ। অভিযোগ, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠি চালায় পুলিশ। তাতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারী।

বাম ছাত্র-যুবকের অভিযোগ, ভুবনেশ্বরে অমিত শাহের সঙ্গে সেটিং করে এসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই বিক্ষোভকারীদের বাধা দিচ্ছে পুলিশ। মুখে বিজেপি বিরোধিতার কথা বললেও অমিত শাহকে লাউড স্পিকার বাজিয়ে সভা করার অনুমতি দিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। ওদিকে CAA-র বিরোধিতায় বিক্ষোভকারীদের ওপর লাঠি চালাচ্ছে তাঁর পুলিশ।

যদিও বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত মাসে নরেন্দ্র মোদীর কলকাতা সফরের সময় কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকায় বামপন্থীদের বিক্ষোভের জেরে বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়। এমনকী রানি রাসমণি রোডে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে ‘মোদীর দালাল ছিঃ ছিঃ’ স্লোগান দেন বাম ছাত্র-যুবরা। তার পরই বামেদের আন্দোলনকে গণ্ডিতে বাঁধার সিদ্ধান্ত সরকারের।


বন্ধ করুন