বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দুর্গাপুজোয় আদালতের নির্দেশ পালনের প্রয়োজন মনে করেননি কেউ, বিরক্ত হাইকোর্ট

দুর্গাপুজোয় আদালতের নির্দেশ পালনের প্রয়োজন মনে করেননি কেউ, বিরক্ত হাইকোর্ট

এমনই চিত্র ধরা পড়েছে দুর্গাপুজোয়। (ছবি সৌজন্য সমীর জানা/হিন্দুস্তান টাইমস)

এমনিতেই দুর্গাপুজোর সময় মানুষের অসচেনতার মাশুল গুনতে হচ্ছে রাজ্যকে।

দুর্গাপুজোয় ভালোমতো ভিড় হয়েছে। আদালতের নির্দেশ মেনে চলার প্রয়োজন আছে বলে কেউ মনে করেননি। ভিড় নিয়ন্ত্রণও ঠিকভাবে করা হয়নি। এমনই ভাষায় অসন্তোষ প্রকাশ করল কলকাতা হাইকোর্ট।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে একাধিক বিধিনিষেধ মেনে দুর্গাপুজো পালনের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। কিন্তু পুজোর কয়েকদিন অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সেই বিধিনিষেধের তোয়াক্কা করা হয়নি। রাস্তায় মানুষের ঢল নেমেছিল। সামাজিক দূরত্ববিধি তো কার্যত মানা হয়নি। কালীপুজো, ছটপুজো, জগদ্ধাত্রী পুজোর ক্ষেত্রেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকে। সেই পরিস্থিতিতে কালীপুজো, জগদ্ধাত্রী পুজোতে ভিড় নিয়ন্ত্রণের আর্জি জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন এক ব্যক্তি।

সোমবার সেই আবেদনের শুনানিতে রীতিমতো অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদ এবং বিচারপতি আনন্দ কুমারের অবকাশকালীন বেঞ্চে। বিরক্তি প্রকাশ করে বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদ জানান, দুর্গাপুজোয় ভালোমতো ভিড় হয়েছে। আদালতে নির্দেশ মেনে চলার প্রয়োজন আছে বলে কেউ মনে করেননি। ভিড় নিয়ন্ত্রণও ঠিকভাবে করা হয়নি। সেইসঙ্গে ওই ব্যক্তিকে ভিড় নিয়ন্ত্রণ নিয়ে মামলা করার অনুমতিও দেওয়া হয়েছে।

এমনিতেই দুর্গাপুজোর সময় মানুষের অসচেনতার মাশুল গুনতে হচ্ছে রাজ্যকে। যে দৈনিক সংক্রমণ একটা সময় অনেকটা নেমে গিয়েছিল, তা আবারও ১,০০০-এর কাছে পৌঁছে গিয়েছে। টানা কয়েকদিন দৈনিক সংক্রমণ ৯০০-র উপরে আছে। বিশেষত উদ্বেগ বাড়িয়েছে কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনা। এমনকী কলকাতার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে রাজ্য সরকারকে চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্র।

বন্ধ করুন