বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জুতোর মণ্ডপ নিয়ে দায়ের মামলার শুনানিতে গঠিত হল বিশেষ বেঞ্চ, নবমীতে শুনানি
কলকাতা হাইকোর্টের নয়া প্রধান বিচারপতি হলেন প্রকাশ শ্রীবাস্তব। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
কলকাতা হাইকোর্টের নয়া প্রধান বিচারপতি হলেন প্রকাশ শ্রীবাস্তব। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

জুতোর মণ্ডপ নিয়ে দায়ের মামলার শুনানিতে গঠিত হল বিশেষ বেঞ্চ, নবমীতে শুনানি

  • দমদম পার্ক ভারত চক্রের এবারের থিম, ‘ধান দেব না, মান দেব না’। আর মণ্ডপে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে দেশের বিভিন্ন কৃষক আন্দোলনের চিত্র।

দমদম পার্কে মণ্ডপসজ্জায় জুতোর ব্যবহার নিয়ে ওঠা অভিযোগের শুনানিতে বিশেষ অবকাশকালীন বেঞ্চ গঠন করলেন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব। নবমীর দিন শুনানি হবে মামলাটি। দমদম পার্কের ওই পুজোয় মণ্ডপসজ্জায় জুতোর ব্যবহারে ধর্মীয় ভাবাবেগ আহত হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে বিজেপি সহ বেশ কয়েকটি সংগঠন।

দমদম পার্ক ভারত চক্রের এবারের থিম, ‘ধান দেব না, মান দেব না’। আর মণ্ডপে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে দেশের বিভিন্ন কৃষক আন্দোলনের চিত্র। তাতেই একাংশে ব্যবহার করা হয়েছে জুতো। উদ্যোক্তাদের দাবি, মণ্ডপসজ্জায় জুতোর ব্যবহার প্রতীকি। কৃষকদের সংগ্রামের কাহিনী ও পায়ে পায়ে তাদের অভিযানকে ফুটিয়ে তুলতে জুতোর ব্যবহার। তেভাগা আন্দোলন, সন্ন্যাসী আন্দোলন, কৃষক আন্দোলনকে তুলে ধরা হয়েছে মণ্ডপে। কিন্তু এই যুক্তি মানতে নারাজ সনাতনপন্থীদের একাংশ। তাদের প্রশ্ন, তেভাগা আন্দোলন, সন্ন্যাসী আন্দোলনের সময় কি কৃষকরা জুতো ব্যবহার করতেন? মণ্ডপ হল মন্দিরের অস্থায়ী রূপ। মন্দির সাজাতে জুতো ব্যবহার করা যায় কি? আসলে সনাতনপন্থীদের আঘাত দিতেই উদ্যোক্তাদের এই পরিকল্পনা।

মণ্ডপের জুতো ষষ্ঠীর আগে খুলে ফেলার অনুরোধ করেছিল বিজেপি। কিন্তু তাতে কর্ণপাত করেননি উদ্যোক্তারা। তার পর উদ্যোক্তাদের আইনি চিঠি ধরিয়েছেন জনৈক ব্যক্তি। বিষটি গড়িয়েছে আদালতের দোরগোড়ায়। যার শুনানি হবে নবমীতে।

 

বন্ধ করুন