বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > SSC Scam: নজিরবিহীন! হাই কোর্টে শুনানি চলাকালীন ভিডিয়ো রেকর্ডিংয়ের অনুমতি, কেন এমন করলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়?
বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। 

SSC Scam: নজিরবিহীন! হাই কোর্টে শুনানি চলাকালীন ভিডিয়ো রেকর্ডিংয়ের অনুমতি, কেন এমন করলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়?

  • নিয়োগ কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত মামলার শুনানি চলাকালীন আদালতে সাংবাদিকদের কার্যধারার ভিডিয়ো রেকর্ডিং করতে বলেন বিচারপতি৷ আইনজীবীরা অবশ্য ভিডিয়োগ্রাফির আপত্তি জানান। তাঁরা বলেন, ‘শুনানি চলাকালীন ভিডিয়োগ্রাফির নিয়ম নেই।’ তখন বিচারপতি বলেন, ‘আমি অনুমতি দিচ্ছি।’

নজিরবিহীন ভাবে আজ কলকাতা হাই কোর্টে শুনানি চলাকালীন ভিডিয়ো রেকর্ডিংয়ের অনুমতি দিলেন বিচারপতি বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। নিয়োগ কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত মামলার শুনানি চলাকালীন আদালতে সাংবাদিকদের কার্যধারার ভিডিয়ো রেকর্ডিং করতে বলেন বিচারপতি৷ আইনজীবীরা অবশ্য ভিডিয়োগ্রাফির আপত্তি জানান। তাঁরা বলেন, ‘শুনানি চলাকালীন ভিডিয়োগ্রাফির নিয়ম নেই।’ তখন বিচারপতি বলেন, ‘আমি অনুমতি দিচ্ছি।’ (আরও পড়ুন: ধর্ষণের মামলায় FIR এড়াতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ BJP নেতা শাহনওয়াজ হুসেন)

এদিকে আজকে অনুব্রত মণ্ডলের মেয়ে সুকন্যা মণ্ডলের হয়ে সওয়ালকারী আইনজীবী অরুনাভ ঘোষের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়ান বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। সেই সময় বিচারপতি এজলাসে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে ঘটনার ভিডিয়ো করতে বলেন। সংবাদ মাধ্যমের উদ্দেশ্যে বিচারপতিকে বলতে শোনা যায়, ‘ইউ ক্যান ইউজ ভিডিয়ো।’ সেই সময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন আইনজীবী অরুনাভ ঘোষ।

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘আপনি কি নিজে ঠিক করছেন? মানুষের জানা উচিত, কোর্টের ভিতর কি হচ্ছে। আমাকে লালচোখ দেখাবেন না। চাইলে আমি আপনাকে জেলেও ভরতে পারি।’ এদিকে নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্জলের মেয়ে সুকন্যা মণ্ডলসহ তাঁর ৬ আত্মীয় ও ঘনিষ্ঠের হাজিরার নির্দেশ খারিজ করে হাই কোর্ট। আদালতের নির্দেশে বৃহস্পতিবার হাজিরা দিতে হাইকোর্টে পৌঁছে গিয়েছিলেন এরা সবাই। কিন্তু শুনানি শুরু হতেই এদের হাজিরার নির্দেশ খারিজ করেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। সঙ্গে খারিজ করা হয়েছে এদের নথি জমা দেওয়ার নির্দেশও।

আজ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, বুধবার যে অতিরিক্ত হলফনামা পেশ করা হয়েছে তা পুরনো ২ মামলার জন্য গ্রহণযোগ্য নয়। তাই এই হলফনামা গ্রহণ করছে না আদালত। এই অভিযোগ নতুনভাবে জানাতে হবে অভিযোগকারীদের। আদালতের এই নির্দেশের ফলে অনুব্রতর পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে বেআইনি নিয়োগের অভিযোগে নতুন মামলা করতে হবে চাকরিপ্রার্থীদের।

বন্ধ করুন