বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > PIL on Dengue: ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে কী পদক্ষেপ? রাজ্য ও KMC-র কাছে হলফনামা চাইল আদালত

PIL on Dengue: ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে কী পদক্ষেপ? রাজ্য ও KMC-র কাছে হলফনামা চাইল আদালত

ডেঙ্গি পরিস্থিতি নিয়ে হলফনামা চাইল কলকাতা হাইকোর্ট। প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)

ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে রাজ্য সরকার ব্যর্থ এই অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন চিকিৎসক সঞ্জীব মুখোপাধ্যায়। এর আগে কলকাতা হাইকোর্ট ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে রাজ্য সরকারকে যে সমস্ত নির্দেশ দিয়েছিল সেগুলি কতদূর কার্যকর হয়েছে তাই জানাতে বলা হয়েছে হলফনামায়।

ডেঙ্গি সংক্রান্ত জনস্বার্থ মামলায় রাজ্য সরকারের কাছে হলফনামা চাইল কলকাতা হাইকোর্ট। রাজ্যে ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে সরকার কী পদক্ষেপ করেছে? সে বিষয়ে নবান্নকে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা জমা দিতে বলেছে প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।

ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে রাজ্য সরকার ব্যর্থ এই অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন চিকিৎসক সঞ্জীব মুখোপাধ্যায়। তাঁর আইনজীবী শমীক বাগচী জানান, এর আগে কলকাতা হাইকোর্ট ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে রাজ্য সরকারকে যে সমস্ত নির্দেশ দিয়েছিল সেগুলি কতদূর কার্যকর হয়েছে তাই জানাতে বলা হয়েছে হলফনামায়। এই মামলায় কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিমকেও যুক্ত করা হয়েছে। তবে পুরসভার পক্ষ থেকে এদিন কোনও কৌঁসুলি ছিলেন না। ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে কলকাতা পুরসভা কী ব্যবস্থা নিয়েছে সে বিষয়ে পুরসভাকেও আলাদা হলফনামা জমা দিতে হবে বলে মঙ্গলবার নির্দেশ দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ।

ডেঙ্গির ভয়াবহতা উল্লেখ করে আইনজীবী জানান, রাজ্যে ডেঙ্গির প্রকোপ ক্রমশ বেড়ে চলেছে। গত কয়েকদিনে সারা রাজ্য জুড়ে বেশ কয়েকজন মারাও গিয়েছেন ডেঙ্গিতে। গত ১৬ নভেম্বর মালদায় ১৩ বছরের এক কিশোরের ডেঙ্গিতে মৃত্যুর কথাও উল্লেখ করেছেন। আইনজীবীর বক্তব্য, কলকাতা পুরসভা সহ অন্যান্য পুরসভা ডেঙ্গি মোকাবিলায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ। রাজ্যের পঞ্চায়েতগুলিও ডেঙ্গি মোকাবিলায় ব্যর্থ। হাসপাতালগুলিতে প্লেটলেটের অভাব রয়েছে। তাই এবিষয়ে হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন রয়েছে। মেডিক্যাল কমিশন ও মনিটারিং সেল গঠনের পাশাপাশি মৃতদের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আর্জি জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ফিরহাদ হাকিম বলেছিলেন তাপমাত্রা কমলে ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। তবে কলকাতা হাইকোর্ট সেই যুক্তি মেনে নেয়নি। আদালত মনে করিয়ে দিয়েছে মানুষের মৃত্যুতে প্রশাসন কোনওভাবে দায় এড়াতে পারে না।

বন্ধ করুন