বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সন্দেহের ভিত্তিতে শাস্তি দেওয়া যায় না, অ্যাসিড হামলায় দোষীকে খালাস করে বলল HC

সন্দেহের ভিত্তিতে শাস্তি দেওয়া যায় না, অ্যাসিড হামলায় দোষীকে খালাস করে বলল HC

কলকাতা হাইকোর্ট। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)

২০১৩ সালের এই ঘটনায় অভিযুক্তদের মধ্যে একজনের বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন ১৮ বছর বয়সী এক তরুণী। এর পর ওই যুবক তরুণীকে হুমকি দেন যে ‘তোর এমন দশা করব যে অন্য কেউ তোকে বিয়ে করবে না’।

সন্দেহ যতই পোক্ত হোক না কেন তা প্রমাণের পরিপূরক হতে পারে না। এই যুক্তি দিয়ে অ্যাসিড হামলায় অভিযুক্ত ২ ব্যক্তিকে বেকসুর খালাস দিল কলকাতা হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণা করে এই পর্যবেক্ষণ জানিয়েছে বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী ও বিচারপতি অজয়কুমার গুপ্তর ডিভিশন বেঞ্চ।

২০১৫ সালে অ্যাসিড হামলার অভিযোগে ২ ব্যক্তির সাজা ঘোষণা করেছিল নিম্ন আদালত। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আসেন দোষী সাব্যস্ত হওয়া ২ ব্যক্তি। এদিন তাদের নির্দোষ ঘোষণা করে আদালত বলে, ‘সন্দেহের ভিত্তিতে কাউকে দোষী সাব্যস্ত করা যায় না। সন্দেহ যতই পোক্ত হোক না কেন তা প্রমাণের পরিপূরক হতে পারে না। তাই বেনিফিট অফ ডাউটের জেরে অভিযুক্তদের বেকসুর খালাস করা হল।’

২০১৩ সালের এই ঘটনায় অভিযুক্তদের মধ্যে একজনের বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন ১৮ বছর বয়সী এক তরুণী। এর পর ওই যুবক তরুণীকে হুমকি দেন যে ‘তোর এমন দশা করব যে অন্য কেউ তোকে বিয়ে করবে না’। এর পরই ওই তরুণী ও তাঁর ৫ বছরের ভাইঝির ওপর রাতের অন্ধকারে অ্যাসিড হামলা হয়।

এই মামলায় নিম্ন আদালতে দোষী সাব্য এক অভিযুক্ত হাইকোর্টে জানায়, তাকে অ্যাসিড ছুড়তে কেউ দেখেনি। এমনকী কী ভাবে সে রাতের অন্ধকারে তরুণীর বাড়িতে ঢুকল তারও ব্যাখ্যা দিতে পারেনি কেউ। এমনকী নিম্ন আদালত যে সব সাক্ষীর বয়ানের ভিত্তিতে রায় দিয়েছিল তারাও পরে নিজের বক্তব্য বদলে ফেলেন। এদিন আদালত বলে, ‘আক্রান্তরা যে অ্যাসিড হামলার স্বীকার হয়েছিলেন সেব্যাপারে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু আসলে যারা হামলা করেছে তাদের ধরতে পারেনি পুলিশ।’

 

বন্ধ করুন