বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হচ্ছে না নারদ মামলার শুনানি, বৃহস্পতিবারও জেল হেফাজতে থাকতে হতে পারে ৪ নেতাকে
ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

হচ্ছে না নারদ মামলার শুনানি, বৃহস্পতিবারও জেল হেফাজতে থাকতে হতে পারে ৪ নেতাকে

  • বৃহস্পতিবার হচ্ছে না নারদ মামলার শুনানি।

ক্রমশ দীর্ঘায়িত হচ্ছে চার হেভিওয়েট নেতার কারাবাস। বৃহস্পতিবার হচ্ছে না নারদ মামলার শুনানি। তার ফলে আজও ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়দের জেল হেফাজতে থাকতে হতে পারে।

বুধবার ঘণ্টা আড়াইয়ের মতো শুনানিতে সিবিআই এবং আইনজীবীর মধ্যে সওয়াল-পালটা সওয়ালের পর কোনও নির্দেশ দেয়নি হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার হাইকোর্ট কী নির্দেশ দেয়, সেদিকে চোখ ছিল রাজনৈতিক মহলের। দুপুর দুটো থেকে নারদ মামলার শুনানি শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ঘণ্টাদুয়েক আগে বেলার দিকে কলকাতা হাইকোর্টের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়, অনিবার্য কারণবশত বৃহস্পতিবার ‘প্রথম ডিভিশন বেঞ্চ’ (প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ) বসছে না। তার ফলে নারদ মামলার জোড়া আবেদনের শুনানি হচ্ছে না। যে মামলার শুনানি কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল এবং বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ হচ্ছিল। কবে সেই শুনানি হবে, সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

আপাতত চার নেতার মধ্যে সুব্রত, মদন এবং শোভন এসএসকেএম হাসপাতালে ভরতি আছেন। তাঁদের শারীরিক অবস্থার উপর নজর রেখেছেন চিকিৎসকরা। রক্তে শর্করার পরিমাণ বেশি আছে। ফিরহাদ প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগার আছেন। তাঁরও জ্বর এসেছিল। তবে বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর আর জ্বর আসেনি বলে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগার সূত্রে খবর। 

তবে সূত্রের খবর, কিছুক্ষণ পরেই কলকাতা হাইকোর্টের কাছে নয়া একটি আবেদন দায়ের করতে পারেন তিন তৃণমূল নেতা এবং শোভনের আইনজীবীরা। তাতে আর্জি জানানো হবে, প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ যেহেতু আজ বসতে পারছে না, তাই নারদ মামলা অন্য কোনও ডিভিশন বেঞ্চে সরিয়ে দেওয়া হোক। সেক্ষেত্রে বৃহ্স্পতিবার শুনানির একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। যদিও সেই আর্জি গ্রহণ হবে কিনা, তা পুরোপুরি হাইকোর্টের উপর নির্ভর করবে। আর্জি গৃহীত না হলে আগামিকাল (শুক্রবার) প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি হতে পারে। আইনজীবীদের একাংশের বক্তব্য, শনিবার এবং রবিবারও শুনানি হওয়ার সুযোগ আছে। তা পুরোপুরি হাইকোর্টের উপর নির্ভর করছে।

বন্ধ করুন